ফরিদগঞ্জ পৌরসভার মেয়রের বিরুদ্ধে ৬ কাউন্সিলারের অভিযোগ

মোহাম্মদ বিপ্লব সরকার, চাঁদপুর প্রতিনিধি:  চাঁদপুরের ফরিদগঞ্জ পৌরসভার মেয়র মাহফুজুল হকের বিরুদ্ধে সরকারি ত্রান বিতরনে ন্বেচ্ছাচারিতা ও পছন্দের লোকদের মধ্যে সরকারি ত্রান বিতরন সহ নানা অভিযোগ তুলে ৬ জন কাউন্সিলার সংবাদ সম্মেলন করেছে।

আজ সোমবার দুপুরে ফরিদগঞ্জ সদর বাজারে একটি দ্বিতল ভবনে আয়োজিত ওই সংবাদ সম্মেলনে মেয়র মাহফুজুল হকের বিরুদ্ধে ৬ জন কাউন্সিলারের যৌথ স্বাক্ষর করা অভিযোগ পত্র সাংবাদিকদের হাতে তুলে দিয়ে কাউন্সিলার পক্ষে বক্তব্য রাখেন কাউন্সিলার খলিলুর রহমান। ওই ৬ জন কাউন্সিলার হলেন যথাক্রমে খলিলুর রহমান, ইসমাইল হোসেন (সোহেল). হারুনুর রশিদ. জামাল উদ্দিন, মজিবুর রহমান, ও ফাতেমা বেগম।

কাউন্সিলারদের স্বাক্ষরিত অভিযোগে উল্লেখ করা হয়েছে যে, ফরিদগঞ্জ পৌর এলাকায় বর্তমানে করোনভাইরাস পরিস্থিতিতে কর্মহীন ও অসহায় মানুষের জন্য সরকারি ভাবে ১২০০ টি ওএমএস কার্ড, ৩৫ মেট্রিক টন রিলিফের চাউল ,নগদ ১ লাখ ৬৫ হাজার টাকা , সমাজের মধ্যবিত্ত শ্রেনীর এবং খুচরা ব্যবসায়ীদেও নামের তালিকায় বরাদ্দ আসে। উক্ত বরাদ্দ মেয়র পূর্বেও ন্যায় এবারও বেশীর ভাগ কাউন্সিলারদের বাদ দিয়ে তার নিজের পছন্দের লোক ও আত্বীয়দের মধ্যে নিজের ইচ্ছেমতো বিতরন করায় গত ১৬ এপ্রিল ফরিদগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসারের বরাবরে একটি লিখিত অভিযোগ দেয়া হয়েছিল। সংবাদ সম্মেলনে কাউন্সিলারগন বলেন, গত তিন বছর যাবৎ মেয়র মাহফুজুল হক কাউন্সিলারদের প্রাপ্য সম্মানীর টাকাও তাদেরকে দেয়নি বলে তারা মেয়রের বিরুদ্ধে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন।

অভিযোগে আরো উল্লেখ করা হয়েছে যে, ফরিদগঞ্জ পৌরসভার মেয়র মাহফুজুল হকের অনিয়ম , দূর্নীতি আর অবিচারের বিরুদ্ধে গত ২০১৮ সালের ২৬ এপ্রিল মোট ৯ জন কাউন্সিলার ওই মেয়রের বিরুদ্ধে অনাস্থার দিয়ে একটি অভিযোগ দাখিল করেছিলেন চাঁদপুরের জেলা প্রশাসক বরাবরে। সেই অভিযোগের আলোকে সরকারী প্রশাসন তদন্তে উক্ত অভিযোগ প্রমানিত হয়েছে বলে কাউন্সিলারগন দাবী করছে।