প্রধানশিক্ষকের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির প্রমাণ মিলেছে

হোমনার রামকৃষ্ণপুর কামাল স্মৃতি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধানশিক্ষক এটিএম আবদুল মতিনের বিরুদ্ধে ছাত্রীদের যৌন হয়রানির প্রমাণ পাওয়া গেছে।

বুধবার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তাপ্তি চাকমা এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

গত ৬ জানুয়ারি বিদ্যালয়ের ১৬জন শিক্ষক-কর্মচারী (সকল শিক্ষক-কর্মচারী) প্রধানশিক্ষকের বিরুদ্ধে আর্থিক অনিয়ম ও অনাস্থা জানিয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবর একটি লিখিত আবেদন করেন।

অভিযোগে তারা উল্লেখ করেন, প্রধানশিক্ষক বিভিন্নভাবে বিদ্যালয়ের ১০ লাখ ২১ হাজার ১৭৬ টাকা আত্মসাৎ করেছেন। এবং শিক্ষক- কর্মচারীদের সঙ্গে কারণে-অকারণে সব সময়ই খারাপ আচরণ করছেন। এরপর গত ৯ জানুয়ারি প্রধান শিক্ষক আবদুল মতিনের অপসারণ ও বিচারের দাবিতে রামকৃষ্ণপর গার্লস স্কুল, রামকৃষ্ণপুর কেকে আরকে উচ্চ বিদ্যালয়, রামকৃষ্ণপুর বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের শিক্ষার্থীসহ শিক্ষক, কর্মচারী, এলাকাবাসী মানববন্ধন এবং বিক্ষোভ মিছিল করেন।

এদিকে প্রধানশিক্ষক আবদুল মতিন জানান, আমি নির্দোষ, একটি বিশেষ মহলের ষড়যন্ত্রের শিকার আমি

উল্লেখ্য, আবদুল মতিন ২০১৬ সালে উক্ত স্কুলের প্রধানশিক্ষক পদে যোগদান করার পর থেকে বিভিন্নভাবে ছাত্রীদের যৌন হয়রানি করে আসছেন।