প্রতি ঈদেই সৈয়দপুরে বাড়ে সড়ক দুর্ঘটনা

সাদিকুল ইসলাম সাদিক, সৈয়দপুর প্রতিনিধিঃ ফাঁকা রাস্তায় বেপরোয়া গাড়ি চলাচলের কারণে প্রতি ঈদেই বাড়ে দুর্ঘটনায় বাড়ে নিহতের সংখ্যা। সৈয়দপুরবাসী বলছেন, এই সময় চলাচলে একটু বেশি সুবিধা হলেও দুর্ঘটনার সংখ্যা থাকেন তারা।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ঈদের সময় আইন শৃঙ্খলা রক্ষা বাহিনীর চালকদের গতিবিধি ভালভাবে লক্ষ্য রাখা দরকার।আহাজারি স্বজন হারানোর। কিশোরগঞ্জে ঈদের পরে দিন সড়ক দুর্ঘটনায় একই পরিবারের ৩ জন হারাতে হয়। শুধু এই পরিবারের নয়।

ঈদের দিন সৈয়দপুর চৌমোহনী বাজারে সড়ক দুর্ঘটনায় সাংবাদিক ওমর ফারুকে ছোট ভাই নিহত হয়। ঈদের ছুটিতে নীলফামার জেলায় সড়ক দুর্ঘটনায় স্বজন হারিয়ে শোকের ছায়া নেমেছে অনেক পরিবারে। নীলফামারবাসী বলছেন, সড়ক দুর্ঘটনা এড়াতে সবার সতর্ক থাকা উচিৎ।যদিও ট্রাফিক পুলিশ ঈদের সময় বেশী তৎপর থাকার দাবি করেন, কিন্তু চালকরা বলছেন, এসময় গাড়ি চালাতে কোন নিয়ম মানতে হয়না।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ঈদে বাড়তি আনন্দ পাওয়ার জন্য সড়কে দ্রুত গতিতে গাড়ি চালানোর কারণে বাড়ছে দুর্ঘটনা। ঈদের ছুটিতে সারাদেশে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত হয়েছেন অনেকেই । নীলফামারী জেলায় বিভিন্ন স্থানে ঘণ্টায় ২০ থেকে ৩০ কি.মি গতিতে গাড়ি চালানোর নিয়ম থাকলেও ঈদের সময় তা বেড়েদাঁড়ায় ৮০ থেকে ৯০ কিলো,মিটারে।

পাশাপাশি চালকদের মধ্যে দেখা যায় সবার আগে যাওয়ার প্রবণতা। একইসঙ্গে পথচারিরাও চলাফেরা করেন বেপরোয়াভাবে। বিশেজ্ঞরা বলছেন, এই অবস্থা নিরসনে প্রশাসনকে আরো বেশী সতর্ক থাকতে হবে।