প্রকাশিত রাজাকারের তালিকা নিয়ে, একে অপরকে দুষছেন দুই মন্ত্রণালয়

সম্প্রতি প্রকাশিত রাজাকারের তালিকা নিয়ে এক অপর কে দুষছেন দুই মন্ত্রণালয়।রাজাকারের তালিকায় বেশ কয়েকজন মুক্তিযোদ্ধার নাম আসায় দুঃখপ্রকাশ করেছেন মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক। তিনি দাবি করছেন, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয় থেকে  রাজাকারের তালিকা যেভাবে পেয়েছেন সেটাই প্রকাশ করেছেন এখানে কোন এডিট করা হয়নি। অন্যদিকে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামালের দাবি তালিকার জন্য যে নোট দেয়া হয়েছিলো তা প্রকাশ করা হয়নি। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় প্রেরিত নোট আমলে নেননি মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়।

এবারিই প্রথমবারের মতো সোমবার প্রকাশ করা হয় রাজাকারের তালিকা। কিন্তু এই তালিকায় এসেছে মুক্তিযোদ্ধাদের নামও। এখন পর্যন্ত বেশ কয়েকজন মুক্তিযোদ্ধাসহ অন্তত ৩০ জন অভিযোগ তুলেছেন তালিকায় থাকা তাদের নাম নিয়ে। সবচেয়ে বেশি অভিযোগ এসেছে বরিশাল বিভাগ থেকে।

মঙ্গলবার (১৭ ডিসেম্বর) শিল্পকলা একাডেমিতে এক অনুষ্ঠান শেষে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী জানান, এই তালিকা স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণায় থেকে সরবরাহ করা হয়েছে। এতে আমার কোন হাত ছিলোনা।

তবে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর দাবি, ১৯৭২ সালের দালাল আইনে যাদের মামলা তুলে নেয়া হয়েছে তাদের নামে নোট দেয়া হয়েছিলো। সেই নোট প্রকাশ করা হয়নি।