পি কে হালদারসহ ৩৩ জনের বিরুদ্ধে দুদকের ৫ মামলা

অবৈধ সম্পদ অর্জন এবং বিদেশে অর্থ পাচারে ইন্টারন্যাশনাল লিজিং অ্যান্ড ফাইন্যান্স সার্ভিস লিমিটেডের পরিচালক প্রশান্ত কুমার হালদারকে (পিকে হালদার) সহযোগিতা করায় ৩৩ জনের বিরুদ্ধে ৫ মামলা করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

রাষ্ট্রীয় এ সংস্থার উপ-পরিচালক মো. গুলশান আনোয়ার বাদী হয়ে গত রোববার চারটি ও সোমবার অন্য মামলাটি করেন।

দুদক সচিব ড. মু. আনোয়ার হোসেন হাওলাদার আজ দুপুরে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

এসব মামলার অভিযোগে বলা হয়, ইন্টারন্যাশনাল লিজিং অ্যান্ড ফাইন্যান্সিয়াল সার্ভিসেস লিমিটেডের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা এবং বোর্ডের সদস্যরা অসৎ উদ্দেশ্যে ক্ষমতার অপব্যবহার-পূর্বক প্রতারণার মাধ্যমে অপরাধমূলক বিশ্বাসভঙ্গ করে ভুয়া ও কাগুজে প্রতিষ্ঠানের নামে টাকা আত্মসাৎ ও মানি লন্ডারিং করেন।

ইন্টারন্যাশনাল লিজিং অ্যান্ড ফাইন্যান্সিয়াল সার্ভিসেসের সাবেক চেয়ারম্যান এম এ হাশেম, সাবেক ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) মো. রাশেদুল হক, ৯ জন বোর্ড মেম্বার, পিপলস লিজিংয়ের চেয়ারম্যান উজ্জ্বল কুমার নন্দী, পি কে হালদারের আত্মীয়স্বজন ও সহযোগীসহ মোট ৩৩ জনকে আসামি করা হয়েছে মামলায়।

এছাড়া পি কে হালদারের সহযোগীদের অর্থ লোপাটের বিষয়ে ইন্টারন্যাশনাল লিজিং অ্যান্ড ফাইন্যান্সিয়াল সার্ভিসেসের ৮৩ জন ব্যক্তির ব্যাংক হিসাব ফ্রিজ করা হয়েছে।

সাড়ে তিন হাজার কোটি টাকা আত্মসাৎ ও অর্থ পাচারের অভিযোগ নিয়ে বিদেশে পালিয়ে রয়েছেন পি কে হালদার।

এদিকে সোমবার দুপুর সাড়ে ১২টায় পি কে হালদারের দুই সহযোগী পিপলস লিজিংয়ের সাবেক চেয়ারম্যান উজ্জ্বল কুমার নন্দী ও ইন্টারন্যাশনাল লিজিংয়ের সাবেক এমডি রাশেদুল হককে ৫ দিনের রিমান্ডে দেন আদালত।