পিপিই পড়েও রক্ষা হয়নি করোনা আক্রান্ত প্রেসক্লাব সম্পাদক চৌধুরী ফরিদ

মোঃ রাশেদ, চট্টগ্রাম প্রতিনিধিঃ করোনা ভাইরাস চট্টগ্রামে আক্রান্ত হবার আগ থেকে আমি ক্লাবে এবং পেশাগত দায়িত্ব পালনে খুবই সতর্ক ছিলাম। মাক্স, পিপিই, হ্যান্ড গ্ল্যাভস সবসময় ছিল। এসব নিয়ে আমার অনেক সহযোদ্ধা সাংবাদিক বন্ধুরা কত টিপ্পনীও দিয়েছে। তারপর মহান আল্লাহর ইচ্ছা এবং হুকুম এর বাইরে নয়।’

বুধবার (২৭ মে) ভোর চারটায় নিজের ভেরিফাইড ফেসবুক আইডিতে পোস্ট করে ঠিক এভাবেই মনের ভাব প্রকাশ করেছেন চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ও টিভি জানালিস্টস্ এসোসিয়েশন চট্টগ্রাম’র সহ-সভাপতি চৌধুরী ফরিদ।

মঙ্গলবার (২৬ মে) বিআইটিআইডি ল্যাবে ৩৩১টি নমুনা পরীক্ষায় চট্টগ্রাম জেলায় ৫১ জন করোনা পজিটিভ রোগীর মধ্যে নগরীর যে ৪৫ জন রোগী শনাক্ত হয়েছে তার মধ্যে প্রেস ক্লাব সম্পাদক চৌধুরী ফরিদও রয়েছেন।

তাছাড়া একই দিন বিআইটিআইডি ল্যাব প্রধান, চট্টগ্রামের আঞ্চলিক দৈনিক পূর্বকোণ,কর্ণফুলি, সময় টিভি, জাতীয় দৈনিক দেশ রুপান্তর পত্রিকার আরো ৬ জন সাংবাদিক করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন।

জানা যায়, চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাব ও চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়ন (সিইউজে)র যৌথ উদ্যোগে চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবে ১৯ মে থেকে সাংবাদিকদের করোনা টেস্টের নমুনা সংগ্রহ শুরু হয়। গত ২৪ মে রোববার যেসব সাংবাদিকদের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে ২৬ মে মঙ্গলবার রাতে প্রকাশিত ফলাফলে প্রেস ক্লাব সম্পাদকসহ ৭ জন গণমাধ্যমকর্মীর ফলাফল পজেটিভ আসে।

চৌধুরী ফরিদ তার ফেসবুক পোস্টে তিনি তার স্ত্রী, সন্তান ও করোনা আক্রান্ত সহকর্মীদের জন্য দোয়া কামনা করে লেখেন,‘পরম দয়ালু, অফুরন্ত রহমতের ভান্ডার মহান আল্লাহর উপর আস্তা, বিশ্বাস এবং ভরসা রেখে করোনাকে জয় করার সংগ্রাম শুরু করলাম ইনশাল্লাহ।

আমার সকল শুভানুধ্যায়ীদের প্রতি বিনীত অনুরোধ, আমি এবং আমার স্ত্রী ও ৩ অবুঝ শিশু সন্তানের জন্য আপনারা হৃদয় থেকে দোয়া ও আশীর্বাদ করবেন। একই সাথে আমার অনেক সাংবাদিক বন্ধু আজ এ রোগে আক্রান্ত, তাদের জন্যও আপনারা দোয়া-আশীর্বাদ করবেন।

করোনা আক্রান্ত হওয়ার তথ্যটি নিজেই গণমাধ্যমকে জানিয়ে তিনি বলেন, ‘সামান্য জ্বরের উপসর্গ থাকলেও শারীরিক অন্য কোনো সমস্যা নেই আমার। করোনা জয় করেই ফিরবো ইনশাল্লাহ। সবার দোয়া চাই।’

করোনা আক্রান্ত চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাব সম্পাদক চৌধুরী ফরিদ বর্তমানে বেসরকারি স্যাটেলাইট টিভি চ্যানেল (চ্যানেল আই) চট্টগ্রাম ব্যুরো প্রধান হিসেবে কর্মরত আছেন।