পিকনিক থেকে ফেরা হলো না শিক্ষার্থীদের প্রতিবাদে দুর্গাপুরে বিক্ষোভ

জাহাঙ্গীর আলম,নেত্রকোণা প্রতিনিধিঃ নেত্রকোণার দুর্গাপুরে পিকনিক করে ফিরে যাওয়ার পথে দুর্গাপুরের বালুবাহী ট্রাকের চাপায় চার শিক্ষার্থী নিহতের ঘটনায় রবিবার (১মার্চ)উত্তাল পুরো উপজেলা এরই প্রতিবাদে রবিবার সকাল থেকে পৌর শহরের প্রেসক্লাব মোড় এলাকায় দূর্গাপুর শ্যামগঞ্জ মহাসড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ শুরু করেন সচেতন ছাত্র সমাজ ।

নিরাপদ সড়ক সহ নানা দাবিতে তারা এই বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করছে। এ সময সকল প্রকার যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায় । তারা জানায়, আর কত রক্ত দিলে বন্ধ হবে সড়কে মৃত্যুর মিছিল, প্রশাসন বারবার আশ্বাস দিলেও এখন পর্যন্ত সড়কে মৃত্যুর মিছিলে সংখ্যা কমাতে পারেনি । দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত আমরা সড়ক থেকে যাবো।

গতকাল শনিবার (২৯ফব্রুয়ারী)রাতে উপজেলায় শান্তিপুরে বালুবাহী লরি ও পিকআপের মুখোমুখি সংঘর্ষে পিকআপে থাকা শিক্ষার্থীরা সড়কে পড়ে যায় । এই সময় পিছন দিক থেকে আসা বেপরোয়া গতির আরেকটি বালুবাহী ট্রাক শিক্ষার্থীদের চাপা দিলে ঘটনাস্থলে নিহত হয় দুইজন ।

পরে আহত অবস্থায় দুর্গাপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে আরো দুইজনের মৃত্যু হয়। এছাড়া আহত হয় আরো কমপক্ষে ১৫জন শিক্ষার্থী। উল্লেখ্য, শনিবার সকালে ময়মনসিংহের গৌরিপুর উপজেলা থেকে শালীহর এলাকার বিভিন্ন স্থানের বেশ কয়েকটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ৪৬ জন শিক্ষার্থী নেত্রকোনার দুর্গাপুরে পিকনিকে আসে।

তারা দুটি পিকাপভ্যানে চরে সাউন্ড বক্স বাজিয়ে রাতে ফিরছিলো। এসময় দুর্গাপুর উপজেলার শানিপুর কালামার্কেট নামক স্থানে পৌছলে পিছনের ২৫ জন বহনকারী পিকাপ ভ্যানের সাথে বালুবাহী লড়ির সংঘর্ষ হয়। এতে করে বেশ কয়েকজন শিক্ষার্থী ছিটকে সড়কে পড়ে যান। এসময় অপর একটি দ্রুতগামী ট্রাক তাদেরকে চাপা দিয়ে চলে যায়। এতে ঘটনাস্থলেই দুজনের মৃত্যু হয়।

আরো দুজনকে হাসপাতালে নেয়ার পর মারা যায়। নিহতরা হচ্ছেন, আরশাদুল, ইয়াসিন, হৃদয় ও মাহবুব। আহতদের মধ্যে গুরুতর অবস্থায় শাহীন ও আলামিন ময়মনসিংহ মেডিকেলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রয়েছেন। তারা সবাই সদ্য সমাপ্ত এস এস সি পরীক্ষায় অংশগ্রহণকারী ছিলেন।