পারস্পরিক সম্পর্ক জোরদারের অঙ্গীকার চীন-মিয়ানমারের

নিজেদের মধ্যে সম্পর্ক জোরদার ও পারস্পরিক সহযোগিতা বাড়ানোর অঙ্গীকার করে এক যৌথ বিবৃতি দিয়েছে চীন ও মিয়ানমার।

শনিবার (১৮ জানুয়ারি) মিয়ানমারের রাষ্ট্রীয় উপদেষ্টা অং সান সু চির সঙ্গে চীনা প্রেসিডেন্ট শি জিনপিংয়ের এক বৈঠকের পর উভয় দেশের প্রতিনিধি এ বিবৃতিতে স্বাক্ষর করেন।

বিবৃতিতে একইসঙ্গে সড়ক সংযোগ ও অবকাঠামোগত খাতে সহযোগিতা ও অগ্রগতির বিষয়ে উভয়পক্ষ তাদের একমত হওয়ার কথা জানায়।

একইসঙ্গে প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং ও মিয়ানমারের নেতা অং সান সু চি দু’দেশের মধ্যে সড়ক সংযোগসহ বিভিন্ন প্রকল্পের বিষয়ে ৩৩টি চুক্তি স্বাক্ষর করেন।

চীনের বিপুল আলোচিত ‘২১ শতকের রেশম সড়ক’ প্রকল্পে মিয়ানমারকে সংযুক্ত করার বিষয়ে এসময় চুক্তি স্বাক্ষর করা হয়।

এছাড়া অর্থনৈতিক করিডর, মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে গভীর সমুদ্র বন্দর নির্মাণ, সীমান্তে বিশেষ অর্থনৈতিক জোন এবং বাণিজ্যিক রাজধানী ইয়াংগুনে নতুন শহর তৈরিসহ বিভিন্ন প্রকল্পে চুক্তি স্বাক্ষর করেন উভয়পক্ষের প্রতিনিধি।

এর আগে শুক্রবার (১৭ জানুয়ারি) দু’দিনের রাষ্ট্রীয় সফরে মিয়ানমারে আসেন চীনা প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং। ১৯ বছরের ব্যবধানে এটিই প্রথম মিয়ানমারে কোনো চীনা প্রেসিডেন্টের রাষ্ট্রীয় সফর।

শুক্রবার মিয়ানমারের প্রেসিডেন্ট উইন মিনতের সঙ্গে সাক্ষাত করেন শি জিনপিং। এসময় বাণিজ্য সম্পর্ক জোরদার ও অর্থনৈতিক সহযোগিতা বাড়ানোর বিষয়ে তাদের আলোচনা হয়।