পাত্রীর ‘মা’ ভালো কি-না সঠিকভাবে খবর নেন..পোস্ট দিয়ে পুলিশের আত্মহত্যা

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে পোস্ট দেয়ার পর রাজধানীর মিরপুর ১৪ নম্বরে পুলিশ লাইন মাঠে নিজের ইস্যু করা অস্ত্র দিয়ে নিজের বুকেই গুলি চালিয়েছেন এক পুলিশ সদস্য। এতে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়।

বৃহস্পতিবার (২৩ জানুয়ারি) ভোর সাড়ে ৫টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। ওই পুলিশ সদস্যের নাম মো. কুদ্দুস সাহা (৩১)। তিনি নায়েক হিসেবে কর্মরত ছিলেন।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে কাফরুল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সেলিমুজ্জামান জানান, কুদ্দুস মিরপুর পুলিশ লাইনে ব্যারাকে থাকতেন এবং তার পদবি ছিল নায়েক। মৃত্যুর আগে তিনি ফেসবুকে একটা স্ট্যাটাস দেন। ধারণা করা হচ্ছে, তিনি নিজেই পোস্টটি দিয়েছিলেন এবং এর ফলশ্রুতিতেই আত্মহত্যা করেন। তবে এ বিষয়ে আরও বিস্তারিত জানার চেষ্টা চলছে। কুদ্দুসের মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য শহীদ সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হবে বলে জানানো হয়েছে।

তার দেয়া ফেসবুক পোস্টটি পাঠকদের জন্য হুবহু তুলে ধরা হলো-

আমার মৃত্যুর জন্য কাউকে দায়ীয় করবো না।

আমার ভেতরের যন্ত্রণাগুলো অনেক বড় হয়ে গেছে। আমি আর সহ্য করতে পারছি না।প্রাণটা পালাই পালাই করছে…………

তবে, সকল অবিবাহিতগণের প্রতি আমার আকুল আবেদন, আপনারা পাত্রী পছন্দ করার আগে পাত্রীর মা ভালো কি-না সঠিকভাবে খবর নিবেন। কারণ পাত্রীর মা ভালো না হলে, পাত্রী কখনোই ভালো হবে না। পরে আপনার সংসারটা হবে দোযকের মতো। সুতরাং সকল সম্মানীত অভিভাবকগণের প্রতি আমার শেষ অনুরোধ, বিষয়টি বিশেষভাবে গুরুত্ব দিবেন।আল্লাহ হাফেজ………

ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ

উত্তর বিভাগ (এসটিএফ)

মিরপুর-১৪, ঢাকা।