পরিত্যক্ত কন্টেইনারে কান্নার শব্দ; ১২৬ অভিবাসন প্রত্যাশী উদ্ধার

গুয়াতেমালায় রাস্তার পাশে পড়ে থাকা পরিত্যক্ত একটি শিপিং কন্টেইনার থেকে ১২৬ অভিবাসীকে উদ্ধার করেছে পুলিশ।

কন্টেইনারটি থেকে চিৎকার-চেঁচামেচি ও কান্নার আওয়াজে পেয়ে পুলিশে খবর দেয় স্থানীয়রা।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি রোববার (১০ অক্টোবর) এক প্রতিবেদনে এ খবর দিয়েছে।

স্থানীয় সময়  শনিবার (৯ অক্টোবর) ভোরের দিকে গুয়াতেমালার নুয়েভা কনসেপসিওন ও কোকেলস শহরের মধ্যবর্তী স্থান থেকে এই অভিবাসনপ্রত্যাশীদের উদ্ধার করা হয়।

গুয়াতেমালার কর্তৃপক্ষের সন্দেহ, পাচারকারীরা এই অভিবাসনপ্রত্যাশীদের পরিত্যক্ত অবস্থায় ফেলে গেছে।

এই অভিবাসনপ্রত্যাশীরা মেক্সিকো হয়ে যুক্তরাষ্ট্রে যেতে চেয়েছিলেন। কিন্তু তারা প্রতারণার শিকার হয়েছেন।

উদ্ধার অভিবাসনপ্রত্যাশীদের মধ্যে ১০০ জনের বেশি সংকট-আক্রান্ত দেশ হাইতির নাগরিক। এই অভিবাসনপ্রত্যাশীদের মধ্যে নেপাল ও ঘানার নাগরিকও আছেন।

অভিবাসনপ্রত্যাশীদের উদ্ধারের পর গুয়াতেমালা পুলিশের এক মুখপাত্র বলেন, আমরা কন্টেইনারের ভেতর থেকে কান্না ও ধাক্কাধাক্কির শব্দ শুনতে পাই।

কন্টেইনারের দরজা খুলে ভেতরে নথিপত্রহীন ১২৬ জন অভিবাসনপ্রত্যাশীকে দেখতে পাই।

পরে অভিবাসীদেরকে গুয়াতেমালান মাইগ্রেশন ইন্সটিটিউট পরিচালিত একটি আশ্রয়কেন্দ্রে পাঠিয়ে দেওয়া হয়। এর আগে কর্মকর্তারা তাদেরকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেন।

গুয়াতেমালার অভিবাসন কর্তৃপক্ষের মুখপাত্র আলেজান্দ্রা মিনা জানান, উদ্ধারকৃত এসব অভিবাসীরা প্রথমে মধ্য আমেরিকার দেশ হন্ডুরাসে পৌঁছান।

সেখান থেকে যুক্তরাষ্ট্রে পৌঁছানোর লক্ষ্যে এক কষ্টকর ভ্রমণ শুরু করেন তারা। তাদেরকে হন্ডুরাস সীমান্ত দিয়ে যথাযথ কর্তৃপক্ষের হাতে তুলে দেয়া হবে।