পদ্মা সেতুর ৩৪তম স্প্যান বসছে আজ

আবহাওয়া অনুকূলে থাকলে ও কারিগরি জটিলতা না দেখা দিলে আজ পদ্মা সেতুতে বসানো হতে পারে ৩৪তম স্প্যান ‘টু-এ’।

গতকাল স্প্যান বসানোর কথা থাকলেও বৈরী আবহাওয়ার কারণে তা সম্ভব হয়নি। দুপুরে ভাসমান ক্রেনের মাধ্যমে নির্ধারিত পিলারের কাছে স্প্যানটিকে নেয়া হলেও আবহাওয়া অনুকূলে না থাকায় স্প্যানটি বসানো যায়নি।

রবিবার সকাল থেকে আবারও স্প্যান বসানোর কাজ শুরু হবে। মুন্সিগঞ্জের মাওয়া প্রান্তে ৭ ও ৮ নম্বর পিলারের ওপর স্প্যানটি বসানো হলে দৃশ্যমান হবে সেতুর ৫ হাজার ১০০ মিটার। সেতুর ৪১টি স্প্যানের মধ্যে এরইমধ্যে ৩৩টি বসানোর কাজ শেষ হয়েছে।

২০১৪ সালের ডিসেম্বরে পদ্মা সেতুর নির্মাণকাজ শুরু হয়। ২০১৭ সালের ৩০ সেপ্টেম্বর ৩৭ ও ৩৮ নম্বর খুঁটিতে প্রথম স্প্যান বসানোর মধ্য দিয়ে দৃশ্যমান হয় পদ্মা সেতু। এরপর একে একে বসানো হয় ৩৩টি স্প্যান। এতে দৃশ্যমান হয়েছে সেতুর ৪ হাজার ৯শ ৫০মিটার অংশ।

৪২টি পিলারে ১৫০ মিটার দৈর্ঘ্যের ৪১টি স্প্যান বসিয়ে ৬ দশমিক ১৫ কিলোমিটার দীর্ঘ পদ্মা সেতু নির্মাণ করা হবে। এর মধ্যে সব কটি পিয়ার এরই মধ্যে দৃশ্যমান হয়েছে। মূল সেতু নির্মাণের জন্য কাজ করছে চীনের ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান চায়না মেজর ব্রিজ ইঞ্জিনিয়ারিং কোম্পানি (এমবিইসি) ও নদীশাসনের কাজ করছে দেশটির আরেকটি প্রতিষ্ঠান সিনো হাইড্রো করপোরেশন। দুটি সংযোগ সড়ক ও অবকাঠামো নির্মাণ করেছে বাংলাদেশের আবদুল মোমেন লিমিটেড।

৬ দশমিক ১৫ কিলোমিটার দীর্ঘ এ বহুমুখী সেতুর মূল আকৃতি হবে দোতলা। কংক্রিট ও স্টিল দিয়ে নির্মিত হচ্ছে এ সেতুর কাঠামো। পদ্মা সেতুর নির্মাণ কাজ সম্পূর্ণ হওয়ার পর আগামী ২০২১ সালেই খুলে দেয়া হবে।