পদ্মায় ২৬ জনের প্রাণহানি: তদন্ত কমিটি গঠন

মাদারীপুরের শিবচরে বাল্কহেডের সঙ্গে যাত্রীবাহী স্পিডবোটের সংঘর্ষের ২৬ জনের প্রাণহানির ঘটনায় তদন্ত কমিটি গঠন করেছে প্রশাসন।

মাদারীপুরের শিবচর উপজেলার পদ্মা নদীতে বাংলাবাজার ফেরিঘাট সংলগ্ন বাংলাবাজার-শিমুলিয়া নৌরুটে এই

দুর্ঘটনায় ২৬ জনের প্রাণহানির ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় জীবিত উদ্ধার করা হয়েছে ৫ জনকে। তবে, এ দুর্ঘটনার

তদন্তে ৬ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। মাদারীপুর জেলা প্রশাসনের স্থানীয় সরকার বিভাগের

উপপরিচালককে প্রধান করে এ তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। তদন্ত কমিটিকে তিন দিনের মধ্যে প্রতিবেদন দাখিল করতে বলা হয়েছে।

মাদারীপুরের জেলা প্রশাসক রহিমা খাতুন এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তদন্ত কমিটির অন্য সদস্যদের মধ্যে রয়েছেন শিবচর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, একজন পুলিশ সদস্য, ফায়ার সার্ভিসের একজন সদস্য, বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ পরিবহন সংস্থার (বিআইডব্লিউটিসি) একজন ও বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহণ কর্তৃপক্ষের (বিআইডব্লিউটিএ) একজন।

এদিকে, দুর্ঘটনায় নিহতদের পরিবারকে ২০ হাজার করে নগদ টাকা ও আহতদের চিকিৎসার দায়িত্ব নিয়েছে জেলা প্রশাসন।

অন্যদিকে, অতিরিক্ত যাত্রী বোঝাইয়ের কারণে এ দুর্ঘটনা ঘটেছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করছে প্রশাসন।

কঠোর বিধিনিষেধে সারাদেশে সব ধরণের গণপরিবহণ চলাচল বন্ধ। এ অবস্থায় মুন্সিগঞ্জের শিমুলিয়া থেকে অতিরিক্ত যাত্রী নিয়ে মাদারীপুরের শিবচর যাচ্ছিল একটি স্পিডবোট। স্পিডবোটটি পদ্মা নদীর বাংলাবাজার ঘাট

এলাকায় পৌঁছলে নোঙর করে রাখা বালুবোঝাই একটি বাল্কহেডে ধাক্কা লেগে উল্টে যায়। তীরের কাছাকাছি হওয়ায় দুর্ঘটনার সাথে সাথে উদ্ধার কাজ শুরু করেন স্থানীয়রা। পরে যোগ দেয় ফায়ার সার্ভিস, কোস্টগার্ড ও নৌ পুলিশ। একে একে উদ্ধার হয় তিন শিশুসহ ২৬ জনের মরদেহ।