নড়াইলে কবিয়াল বিজয় সরকারের ৩৪তম মৃত্যুবার্ষিকী পালিত

খনন্দকার সাইফুল, নড়াইল প্রতিনিধিঃ একুশে পদকপ্রাপ্ত চারণকবি বিজয় সরকারের ৩৪তম মৃত্যুবার্ষিকী পালিত হয়েছে। এ উপলক্ষ্যে ৫ ডিসেম্বর(বৃহস্পতিবার) সন্ধায় নড়াইল শিল্পকললা একাডেমীর মুুক্তমঞ্চে নানা আয়োজনের মধ্যে কবিয়াল বিজয় সরকারকে স্মরন করেন ভক্তরা। এসময় উপস্থিত ছিলেন জেলা প্রশাসক ও চারন কবি বিজয় সরকার ফাউন্ডেশনের আহবায় আনজুমান আরা,যুগ্ম আহবায়ক আকরাম শাহীদ চুন্নু,জেলা শিল্পকলা একাডেমীর সাধারন সম্পাদক মলয় কুমার কুন্ডু,গবেষক অধ্যক্ষ রওশন আলী প্রমুখ
সন্ধ্যায় কবির প্রতিকৃতিতে পুস্পমাল্য অর্পনের পরপরই মঙ্গল প্রদীপ জ্বালিয়ে তার আতœার শান্তি কামনা করা হয়। এরপর উন্মুক্ত মঞ্চে বিজয়গীতি পরিবশনার মধ্য দিয়ে রাত ১০ টায় কর্মসূচী সমাপ্ত করা হয়।

বার্ধ্যকজনিত কারণে ১৯৮৫ সালের ৪ ডিসেম্বর ভারতে পরলোকগমন করেন কবিয়াল বিজয় সরকার। পশ্চিমবঙ্গের কেউটিয়ায় তাকে সমাহিত করা হয়।
কবিয়াল বিজয় সরকার ১৯০৩ সালের ২০ ফেব্রুয়ারি নড়াইল সদর উপজেলার ডুমদি গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। বাবা নবকৃষ্ণ অধিকারী ও মা হিমালয়া দেবী। বিজয় সরকার একাধারে গীতিকার, সুরকার ও গায়ক ছিলেন। প্রকৃত নাম বিজয় অধিকারী হলেও সুর, সঙ্গীত ও অসাধারণ গায়কী ঢঙের জন্য ‘সরকার’ উপাধি লাভ করেন। ‘পাগল বিজয়’ হিসেবে সমধিক পরিচিত তিনি।
যেমন আছে এই পৃথিবী / তেমনিই ঠিক রবে/ সুন্দর পৃথিবী ছেড়ে একদিন চলে যেতে হবে, স্ত্রী বীনাপাণির মৃত্যুর খবরে গানের আসরেই গেয়েছেন-‘পোষা পাখি উড়ে যাবে সজনী/ ওরে একদিন ভাবি নাই মনে/ সে আমারে ভুলবে কেমনে…’ এরকম প্রায় দুই হাজার মরমী গানের জনক এই কবি ২০১৩ সালে একুুশে পদকে ভ’ষিত হন।