নোয়াখালী সুবর্ণচরে যুবতীকে অপহরণ করে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগ

মোঃ ইমাম উদ্দিন সুমন, সুবর্ণচর, নোয়াখালী প্রতিনিধিঃ নোয়াখালী সুবর্ণচরে যুবতীকে রাস্তা থেকে তুলে নিয়ে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ বিষয়ে ঐ যুবতী চরজব্বার থানায় লিখিত অভিযোগ করেন। ভুক্তভোগি নাদিয়া১৯(ছন্দ নাম) বলেন, আমার এক ছোট ভাইকে নিয়ে গত ৫ জুলাই রোববার ব্যক্তিগত কাজে নোয়াখালী জেলা শহর মাইজদীতে যাওয়ার পথে সুবর্ণচর উপজেলার চরবাটা খাসের হাট রাস্তার মাথায় গাড়ীর জন্য অপেক্ষা করি।
কিছুক্ষণ পর আমার ভাইয়ের বন্ধু ২ নং চরবাটা ইউনিয়নের সিরাজুল হকের পুত্র নুরুল হক টিটু (৩০) একটি মাক্রোবাস নিয়ে তার সামনে আসে এবং তাকে সোনাপুর নামিয়ে দেয়ার কথা বলে মাক্রোবাসে তুলে নেন, আমার ভাইয়ের বন্ধু সে হিসেবে আমি সরল বিশ্বাসে গাড়ীতে উঠি, কিছুদূর যাওয়ার পর পথিমধ্যে সুবর্ণচর উপজেলার আল আমিন বাজারেরর আগে মুখোশ পরে ঐ মাইক্রোবাসে উঠেন পূর্বচরবাটা গ্রামের মমতাজ মাষ্টারের পুত্র ইউছুপ জামাল ওরপে জামাল শুভ (৩২) মাইক্রোবাসটি সোনাপুর না থামিয়ে কবিরহাট, বসুর হাট হয়ে ফেনীর উদ্যেশ্যে যেতে থাকে এতে আমি নামার জন্য চেষ্টা করলে তারা আমার সাথে ধস্তাধস্তি করে এবং চিৎকার করলে মেরে ফেলার হুমকি দেন।
মাক্রোবাসটি কুমিল্লা গিয়ে পৌঁছলে আমি কৌশলে নামার জন্য পানি খেতে চাইলে তারা জনশূন্য একটি যায়গায় টিটু এবং আমার ভাইকে পানি আনতে পাঠায় আমি ঝাঁপ দিয়ে নামতে চাইলে জামাল মাক্রোবাসের দরজা আটকিয়ে টিটু এবং আমার ভাইকে রাস্তায় রেখে পূনরায় গাড়িটি ঢাকার উদ্যেশে চালাতে থাকে জামালের ফোনে আমি টিটু কথা বলার সময় আমি আমার বড় ভাই চট্রগ্রামে কর্মরত পুলিশ কর্মকর্তাকে ফোন করে বিষয়টি জানাই তিনি টিটুকে ফোন করে ধমক দিলে জামাল ঢাকার কাছাকাছি জায়গায় থেকে পূনরায় আমার একই রুটে এসে টিটু এবং আমার ভাইকে মাক্রোবাসে তুলে সুবর্ণচর উপজেলার একটু আগে রাস্তার মধ্যে নামিয়ে দেয় এসময় তারা এঘটনাটি কাউকে জানালে প্রানে মেরে পেলার হুমকি দেয়।
এখনো জামাল আমার ফোনে হুমকি দিয়ে যাচ্ছে, পথে একাধিকবার সে আমার গায়ে হাত দেয়। সে ঢাকায় নিয়ে আমাকে ধর্ষণ করার পরিকল্পনা ছিল। আর এই পুরো পরিকল্পনার মূল হোতা নুরুল হক টিটু। আমি ওদের দৃষ্টান্ত শাস্তি চাই। ভুক্তভোগি আরো বলেন, জামাল দির্ঘদিন ধরে আমাকে অনৈতিক প্রস্তাব দিয়ে আসছিল এর পূর্বেও অনেকবার আমার চাকুরীর স্থলে যাওয়ার পথে সে আমকে অশালীন ভাষায় কথা বলতো এবং কুপ্রস্তাব দিতো, এ ঘটনাটি তাদের পূর্বপরিকল্পিত। জামাল বিবাহিত তার ২ টি সন্তান আছে আমার সাথে এমন ন্যাক্কার জনক ঘটনার উপযুক্ত বিচার চাই। অভিযুক্ত নুরুল হক টিটুর সাথে ঘটনার বিষয়ে জানতে চাইলে সাংবাদিক পরিচয় দেয়ার পর তিনি ফোনটি বন্ধ করে দেন।
কিছুক্ষণ পর ফোন করে তিনি বলেন, আমি ঘটনার সাথে জড়িত নই, আমাকে হেয় করার জন্যই আমার বিরুদ্ধে মামলা করেছে। অভিযুক্ত ইউছুপ জামালকে ফোন করা হলে তিনি বলেন, তার সাথে আমার সম্পর্ক ছিল, আমি তাকে বিয়ে করার প্রস্তাব দিয়েছি। ঘটনার বিষয়ে জানতে চাইলে, চরজব্বার থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সাহেদ উদ্দিন বলেন এ বিষয়ে লিখিত অভিযোগ পেয়েছি তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হবে।