নোয়াখালীতে করোনা উপসর্গ নিয়ে হাসপাতালে যুবকের মৃত্যু

হাসান ইমাম রাসেল, নোয়াখালী প্রতিনিধি: জ্বর, শ্বাসকষ্টসহ করোন উপসর্গ নিয়ে ২৫০ শয্যা নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে ইউসুফ আলী (৩৪) নামে এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে। রোববার রাত আনুমানিক ১০টার দিকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। এ নিয়ে জেলায় গত পাঁচ দিনে করোনা উপসর্গ নিয়ে দুই নারীসহ মারা গেল তিনজন।

নিহত ইউসুফ বেগমগঞ্জ উপজেলার চৌমুহনী পৌরসভার ৩নং ওয়ার্ডের হাজীপুর এলাকার নুর মোহাম্মদের ছেলে। তিনি চৌমুহনীর গোলাবাড়িয়া এলাকার সুগন্ধা কমিউনিটি সেন্টারের ম্যানেজার ছিলেন।

হাসপাতল সূত্রে জানা যায়, রোববার বিকালে জ্বর, কাশি ও শ্বাসকষ্ট নিয়ে ভর্তি হন ইউসুফ। পরীক্ষা নিরিক্ষা করে দেখা যায় তার ফুসফুসের সংক্রমণ দেখা দেয়ায় তাকে দ্রুত ঢাকায় কুর্মিটোলা নিয়ে যাওয়ার পরামর্শ দেওয়া হলেও পরিবারের পক্ষ থেকে তারা নেয়নি। এক পর্যায়ে রাত প্রায় ১০টার দিকে তিনি চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।

নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালের আরএমও সৈয়দ মহি উদ্দিন আবদুল আজিম জানান, তার শরীর থেকে করোনা পরীক্ষার নমুনা নেয়ার পর মরদেহ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হবে।

উল্লেখ, ইউসুফসহ জেলায় গত পাঁচ দিনে করোনা উপসর্গ নিয়ে মারা গেছে তিনজন। এর মধ্যে রোববার (৩ মে) ভোরে সেনবাগ উপজেলার কাবিলপুর ইউনিয়নে নানার বাড়িতে করোনা ভাইরাসের উপসর্গ নিয়ে মারা যান মাদ্রাসা ছাত্রী তনিমা ইসসলাম সামিয়া (১৩)। তার বাবার বাড়ি বেগমগঞ্জ উপজেলায়। এর আগে গত বুধবার (৩০ এপ্রিল) সকালে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান সদর উপজেলার করমুল্যা এলাকার বাসিন্দা রোকসানা আক্তার (১৭)।

তবে এখনই তাদের করোনায় মৃত্যু বলতে নারাজ জেলা সিভিল সার্জন।তিনি বলেন তাদের নমুনা নেয়া হয়েছে রিপোর্টআসলে জানা যাবে তারা করোনায় মৃত্যুবরন করেছে কিনা। তিনি আরও বলেন এ পর্যন্ত জেলা করোনা আক্রান্ত মৃত্যুবরন করেছে দুজন, আক্রান্ত আছে ১৫ জন।