নেত্রকোণা পল্লী বিদ্যুৎ এর নগণ্য সেবায় অতিষ্ট বরাহাট্টা উপজেলার মানুষ

মামুন কৌশিক, বারহাট্টা প্রতিনিধি: নেত্রকোণার বারহাট্টা উপজেলা সহ মোহনগঞ্জ উপজেলা ও সুনামগঞ্জের ধর্মপাশা উপজেলায় গত পাঁচ সেপ্টেম্বর থেকে সকাল সাতটা থেকে বিকাল সাড়ে তিনটা পর্যন্ত বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ রাখার কথা বলেছিল নেত্রকোণা পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির রাজেন্দ্রপুর কার্যালয়। তখন তারা জানিয়েছিল যে মুজিববর্ষে এবং করোনাভাইরাসের দুর্যোগের সময়ে নিরবচ্ছিন্ন ও মানসম্মত বিদ্যুৎ সরবরাহের স্বার্থে নেত্রকোনা গ্রিড উপকেন্দ্রের মেরামত করা হবে।
৩৩ কেভির ৩নং সার্কিটের গ্রিড উপকেন্দ্র থেকে ঠাকুরাকোনা অংশে ৫ সেপ্টেম্বর শনিবার সকাল ৭টা থেকে বিকাল ৩টা পর্যন্ত ৩৩ কেভি ডাবল সার্কিট নির্মাণ ও জরুরি রক্ষণাবেক্ষণ কাজ চলবে। কাজ চলাকালীন বারহাট্টা ও মোহনগঞ্জ এবং সুনামগঞ্জের ধর্মপাশা উপজেলায় আগামী একমাস বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ থাকবে।তবে সপ্তাহের শুক্রবার ও রোববার বিদ্যুৎ সরবরাহ চালু থাকবে।কিন্তুু পল্লী বিদ্যুৎ অফিস সেই কথা রাখেনি বলে অভিযোগ সংশ্লিষ্ট এলাকাবাসীর। বারহাট্টায় কোর্ড রোড নিবাসী গৃহশিক্ষক ও স্থানীয় বারহাট্টা নিউজের সাধারণ সম্পাদক নাজমুল হক বলেন যে, পল্লী বিদ্যুৎ কর্তৃপক্ষ আমাদের নগণ্য সেবা দিচ্ছে।
কিন্তুু বিদ্যুৎ বিল ঠিকই অনেক বেশি আসছে।আমরা এই অবস্থা থেকে পরিত্রাণ চাই।তিনি আরও ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন যে, আজকে সকাল সাতটার দিকে বিদ্যুৎ গেছে এখন সন্ধ্যা সাতটা এখনও বিদ্যুৎ আসেনি। এটা কেমন সিস্টেম হল।কর্তৃপক্ষ চাইলে শীতের সময়ও লাইনের কাজ করতে পারত। কিন্তুু তারা তা করে আমাদের দুর্ভোগ শতগুণ বাড়িয়ে দিয়েছি।এ ছাড়াও বারহাট্টা মোহনগঞ্জ এলাকার শত শত মানুষ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পল্লী বিদ্যুৎের এই রকম দায়হীন কাজে প্রতিবাদ জানিয়েছে।