নেত্রকোণায় নিখোঁজের ৩৩ ঘন্টা পর বকুল মিয়ার লাশ উদ্ধার

 জাহাঙ্গীর আলম, নেত্রকোণা প্রতিনিধিঃ নেত্রকোণা জেলার কলমাকান্দা উপজেলায় নিখোঁজের ৩৩ ঘন্টা পর দিনমজুর বকুল মিয়ার (৩৫) ভাসমান লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। আজ রবিবার (২৩ আগস্ট) সকালে কলমাকান্দা উপজেলার উব্দাখালী নদীর মোহনা থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়। স্থানীয় লোকজন রবিবার সকাল ৮টার দিকে উপজেলার চান্দুয়াইল গ্রাম সংলগ্ন জিয়া খালের উব্দাখালী নদীর মোহনায় নিখোঁজ বকুল মিয়ার লাশ ভাসতে দেখে থানা পুলিশকে খবর দেয়। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে স্থানীয়দের সহায়তায় বকুল মিয়ার লাশ উদ্ধার করে। পরে লাশের সুরতহাল প্রতিবেদন তৈরি করা হয়।
কলমাকান্দা থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ মাজহারুল করিম জানান, কলমাকান্দা উপজেলার সদর ইউনিয়নের নয়ানগর গ্রামের মৃত খোকন মিয়ার পুত্র দিনমজুর বকুল মিয়া গত শুক্রবার রাত ১১টার দিকে কলমাকান্দা বাজার থেকে তার বাড়ী নয়ানগর গ্রামে যাওয়ার পথে চান্দুয়াইল গ্রাম সংলগ্ন জিয়া খালে ফেরী না পেয়ে অন্যান্য সাথীদের সাথে সাঁতার কেটে পার হচ্ছিল। অন্যান্য সাথীরা সাতার কেটে খাল পর হতে পারলেও তীব্র স্রোতের কারণে বকুল মিয়া খালের পানিতে তলিয়ে যায়।
এ সময় সাথে থাকা লোকজনের ডাক-চিৎকারে আশপাশের বাড়ীর লোকজন ঘঁনাস্থলে ছুটে আসে। তারা তাৎক্ষনিক বিষয়টি থানা পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসকে খবর দেয়। খবর পেয়ে পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের লোকজন রাতেই ঘটনাস্থলে ছুটে যায়। অনেক অনুসন্ধানের পরও নিখোঁজ বকুলের কোন ন্ধান না পাওয়ায় রাতেই বিষয়টি ময়মনসিংহ ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরী দলকে জানানো হয়। ডুবুরী দল শনিবার সকাল থেকে উদ্ধার অভিযান পরিচালনা করে বকুলের কোন সন্ধান না পেয়ে সন্ধ্যায় উদ্ধার অভিযান সমাপ্তি ঘোষনা করে। স্থানীয় লোকজন রবিবার সকালে উব্দাখালী নদীর মোহনায় একটি লাশ ভাসতে দেখে থানা পুলিশকে খবর দেয়। পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে সকাল ৮টার দিকে লাশ উদ্ধার করে। লাশের সুরতহাল প্রতিবেদন তৈরি করার পর পরিবারের পক্ষ থেকে আবেদনের প্রেক্ষিতে স্থানীয় প্রশাসনের অনুমতি সাপেক্ষে লাশ স্বজনের কাছে হস্তান্তর করা হয়।