নিউ বসুন্ধরা রিয়েল স্টেট লিমিটেডের বাগেরহাটে মান্নান তালুকদারের ৪৮ একর জমি ও চারটি গাড়ী ক্রোকের আদেশ

মাহফুজুর রহমান বাপ্পী, বাগেরহাট প্রতিনিধিঃ বাগেরহাটের নিউ বসুন্ধরা রিয়েল স্টেট লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) আব্দুল মান্নান তালুকদারের ৩০টি ব্যাংঙ্ক একাউন্ট জব্দের আদেশ দিয়েছে আদালত। আদালত একই সাথে তার ১০৮টি জমির দলিলের সম্পত্তি এবং চারটি গাড়ী ক্রোক করার আদেশ দিয়েছে। বুধবার বাগেরহাটের সিনিয়র ষ্পেশাল জজ আদালতের বিচারক গাজী রহমান দীর্ঘ শুনানি শেষে এই আদেশ দেন।
দুদকের দায়ের করা ১১০ কোটি টাকা পাচারের মামলায় নিউ বসুন্ধরা রিয়েল স্টেট লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আব্দুল মান্নান তালুকদার গত বছরের ১৫ জুলাই আদালতে আত্নসমর্পণ করলে আদালত তাকে কারাগারে পাঠায়। সেই থেকে তিনি বাগেরহাট জেলা কারাগারে রয়েছেন।
দুদকের কৌশুলি (পিপি) মিলন কুমার ব্যানার্জী বলেন, সম্প্রতি দুদকের দায়ের করা টাকা পাচারের মামলার তদন্ত প্রতিবেদন আদালতে জমা দেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা। দুদকের তদন্তে নিউ বসুন্ধরা রিয়েল স্টেট লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আব্দুল মান্নানের মালিকানাধীন বিভিন্ন সহযোগি প্রতিষ্ঠানের ৩০টি ব্যাংঙ্ক হিসাব, ১০৮টি দলিলে প্রায় ৪৮ একর জমি এবং তার ব্যবহ্নত চারটি গাড়ীর সন্ধান পায়।
আদালতের বিচারক দীর্ঘ শুনানি শেষে আব্দুল মান্নানের সব ব্যাংঙ্ক হিসাব জব্দ করে এবং তার স্থাবর সম্পত্তি এবং গাড়ী ক্রোক করার আদেশ দেন। মামলা তদন্ত কর্মকর্তা বাগেরহাট-খুলনা-সাতক্ষীরা সমন্বিত জেলা কার্যালয়ের সহকারি পরিচালক (এডি) মো. শাওন মিয়া বলেন, গত বছরের ৩০ মে দুদকের দায়ের করা মামলার তদন্ত শুরু হয়। ওই মামলায় তদন্ত করতে করতে যেয়ে নিউ বসুন্ধরা রিয়েল স্টেট লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) আব্দুল মান্নান তালুকদারের বেশ কয়েকটি সহযোগি প্রতিষ্ঠানের বিপরীতে ৩০টি ব্যাংঙ্ক একাউন্ট হিসাব পাওয়া গেছে।
এছাড়া তার নামে ১০৮টি দলিলে বাগেরহাট, খুলনা, পিরোজপুর ও গোপালগঞ্জে প্রায় ৪৮ একর জমি এবং চারটি গাড়ীর সন্ধান পাওয়া গেছে। তার নামে থাকা সব একাউন্ট জব্দ করতে এবং জমি ও গাড়ী ক্রোক করতে আদালতে একটি আবেদন দাখিল করি। গত বছরের ৩০ মে বাগেরহাট সদর মডেল থানায় দুদকের খুলনা জেলা সমন্বিত কার্যালয়ের সহকারি পরিচালক (এডি) মো. শাওন মিয়া বাদী হয়ে নিউ বসুন্ধরা রিয়েল স্টেট লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) আব্দুল মান্নান তালুকদার ও তার প্রতিষ্ঠানের চেয়ারম্যান আনিসুর রহমানের বিরুদ্ধে ১১০ কোটি টাকা পাচারের একটি মামলা করেন।
নিউ বসুন্ধরার এমডি আব্দুল মান্নান তালুকদার গত প্রায় নয় বছরে বাগেরহাটের ১৬টি ব্যাংকের ৩০টি (একাউন্ট) হিসাবে ১১০ কোটি ৩১ লাখ ৯৩৫ টাকা ৫৮ পয়সা জমা করেন। প্রসঙ্গত, ২০১০ সালে বাগেরহাট জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের চতুর্থ শ্রেণীর কর্মচারি আব্দুল মান্নান তালুকদার নামে এক ব্যক্তি সেচ্ছায় অবসর নিয়ে নিউ বসুন্ধরা রিয়েলস্টেট লিমিটেড নামে একটি জমি কেনাবেচার প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলেন। ওই প্রতিষ্ঠানে তিনি ব্যবস্থাপনা পরিচালক এবং তার ওই প্রতিষ্ঠানের চেয়ারম্যান করা হয় বাগেরহাট শহরের মিঠাপুকুরপাড় জামে মসজিদের ঈমাম আনিসুর রহমান নামে আরেক ব্যক্তিকে।
এই প্রতিষ্ঠানটি গড়ে তোলার পর তিনি গ্রাহকদের প্রতিলাখে মাসে দুই থেকে আড়াই হাজার টাকা করে দেয়ার প্রলোভনে বাগেরহাট, খুলনাসহ বেশ কয়েকটি জেলার অন্তত ২০ হাজার গ্রাহকের কাছ থেকে অন্তত ২৯৯ কোটি টাকা আমানত সংগ্রহ করেন।