নাটোরে বিষধর সাপের খামারে অভিযান!

সাজেদুর রহমান, নাটোর প্রতিনিধিঃ নাটোরের নলডাঙ্গার বৈদ্যবেলঘরিয়া এলাকায় অবৈধ সাপের খামারে বুধবার বিকালে নলডাঙ্গা উপজেলা প্রশাসন,রাজশাহী বন্যপ্রাণী ব্যবস্থাপনা ও প্রকৃতি সংরক্ষণ বিভাগ যৌথ অভিযান পরিচালনা করে।

এসময় সাপের খামার থেকে ৪৯ টি বিষধর সাপ, ২৯ টি বক্স ৩৬টি ডিম উদ্ধার করা হয়েছে। বিশেষ করে গোখরা সাপের সংখ্যাই বেশি। অভিযান সূত্রে জানা যায়, নাটোরের নলডাঙ্গা উপজেলার বৈদ্যবেলঘরিয়া চৌধুরীপাড়া মাঠে অসংরক্ষিত ভাবে গড়ে তোলা হয়েছে, বিষাক্ত সব সাপের খামার।

চৌধুরীপাড়া গ্রামের নুর মোহাম্মদের ছেলে শাহাদৎ হোসন (৩৫) এই সাপের খামারটি গড়ে তোলে। একটি টিন শেটের ঘরে,বৈজ্ঞানিক কোন পদ্ধতি ছাড়ায় চলছিল, এই খামারটি। চারিদিকে বন-জঙ্গল আর আবাদি এলাকায় এই খামার। যেখানে খামারি নিজেই জানেন”না কি করে, কি উপায়ে সাবধনতা অবলম্বন করে সাপগুলো ব্যবস্থাপনা করতে হয়।

খামারে নেই কোন বিদ্যুতের ব্যবস্থা,নেই কোন কাঁচের সুরক্ষিত বক্স। খামারটিতে ছোট-বড় মিলে মোট ৪৯টি সাপ থাকলেও নেই কোন সঠিক ব্যবস্থাপনা-নেই কোন বৈধ কাগজপত্র। এ ব্যাপারে রাজশাহী বন্যপ্রাণী ব্যবস্থাপনা ও প্রকৃতি সংরক্ষণ বিভাগের বন্যপ্রাণী পরিদর্শক জাহাঙ্গাগীর কবির জানান, বিবিসিএফ এর তথ্যের ভিত্তিতে এই অভিযান করা হয়।

সাপের খামারটি অবৈধ। প্রকাশ থাকে যে,গত ২৫ ও ২৬ জুলাই “নাটোরে অবৈধ বিষধর সাপের খামার; শিরোনামে “চ্যানেল এস ; সহ বিভিন্ন গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশিত হয়। বিবিসিএফ এর দপ্তর সম্পাদক ফজলে রাব্বী বলেন, বন্যপ্রানী সংরক্ষনে দেশব্যাপী কাজ করছে,বিবিসিএফ এর সদস্যরা। বন্যপ্রানী নিয়ে অবৈধ কার্যক্রম বন্ধে এমন অভিযান অব্যহত থাকবে।

নলডাঙ্গার উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ আব্দুল্লাহ আল মামুন বলেন,বিবিসিএফ এর তথ্যের ভিত্তিতে নলডাঙ্গা উপজেলার বৈদ্যবেলঘরিয়া চৌধুরীপাড়া গ্রামে লাইসেন্স বিহীন অবৈধ সাপ খামারে অভিযান পরিচলনা করা হয়।

মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করে বন্যপ্রাণী (সংরক্ষণ ও নিরাপত্তা) আইন, ২০১২ অনুযায়ী মালিককে ৩০০০০/- জরিমানা দন্ড প্রদান করা হয়। উদ্ধারকৃত ৪৯টি বিষধর সাপ বন্যপ্রাণী সংরক্ষণ অধিদপ্তরের উপস্থিত কর্মকর্তার নিকট হস্তান্তর করা হয়। এসময় নলডাঙ্গা থানা সহায়তা প্রদান করেন।