নাটোরের বাগাতিপাড়ায় প্রতিপক্ষের হুমকিতে চার মাস বাড়ি ছাড়া এক পরিবার

সাজেদুর রহমান, নাটোর প্রতিনিধিঃ নাটোরের বাগাতিপাড়ায় জমি-জমা সংক্রান্তের জেরে প্রতিপক্ষের হুমকিতে চার মাস ধরে বাড়ি ছাড়া রয়েছে একটি পরিবার। পৈত্রিক বাড়ি ভিটা থেকে উচ্ছেদ করতে সম্প্রতি দু-দফা প্রতিপক্ষের হামলার শিকার হয়ে আহত হন ভুক্তভোগী হাসানুজ্জামানের স্ত্রী ও সন্তান। এনিয়ে আদালতে মামলা চলমান রয়েছে। হামলার পর থেকে স্ত্রী-সন্তান নিয়ে অন্যের বাড়িতে মানবেতর জীবন যাপন করছেন ভুক্তভোগী হাসানুজ্জামান। উপরন্তু বাড়ির ভিটা দখলে রাখতে প্রতিপক্ষরা বিভিন্ন সময় নানা রকম হুমকি প্রদান করছে বলেও অভিযোগ করেছেন ভুক্তভোগী পরিবার।
নিজ বাড়িতে ফিরে স্বাভাবিক জীবন-যাপনের নিশ্চয়তা চায় পরিবারটি । আদালতে দায়েরকৃত মামলা ও ভুক্তভোগী পরিবার সূত্রে জানা যায়, উপজেলার সালাইনগর গ্রামের মৃত মজাহার আলীর দ্বিতীয় স্ত্রীর সন্তান হাসানুজ্জামান। বাবা মারা যাওয়ার পর পিতার বাড়ির ভিটা থেকে হাসানুজ্জামানকে উচ্ছেদ করতে তার সৎ ভাই সিদ্দিকুর রহমানসহ পরিবারের অন্যরা নানা নির্যাতন শুরু করে। এর জের ধরে ধান কাটার মৌসুমে হাসানুজ্জামান বাড়ি থেকে উত্তারাঞ্চলে ধান কাটতে যাওয়ার সুযোগে গত ৫ মে সকালে বাড়ি ভিটার সুপারি পাড়াকে কেন্দ্র করে হাসানুজ্জামানের স্ত্রী অজুফা বেগম (২৮) এবং শিশু সন্তান মাশরাফি (১২) কে প্রতিপক্ষরা আক্রমন করে আহত করে।
সেসময় বাগাতিপাড়া হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়ে তারা বাড়ি ফিরে। বাড়ির ফেরার পর ওই দিন রাত ১টার দিকে পুনরায় বাড়িতে হামলা করে অজুফা বেগম ও শিশু সন্তান মাশরাফিকে গুরুত্বর আহত করে। সেসময় নগদ অর্থ ও ধান-গম লুটেরও অভিযোগ করেন ভুক্তভোগী পরিবার।
পরে প্রতিবেশিরা আহতদের বাগাতিপাড়া হাসপাতালে নিলে দায়িত্বরত চিকিৎসক অজুফাকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে উন্নত চিকিৎসার জন্য প্রেরন করেন। সেখানে চিকিৎসা শেষে অজুফা সুস্থ হয়ে এলাকায় আসলেও প্রতিপক্ষের ফের হামলার ভয়ে স্বামী সন্তান নিয়ে বাড়িতে প্রবেশ করতে আর পারেননি বলে হাসানুজ্জামান অভিযোগ করেন। এঘটনায় প্রথমে বাগাতিপাড়া থানায় এবং পরে উপজেলা নির্বাহী অফিসার কে লিখিত অভিযোগ করেন।
কোন সুরাহা না হলে অজুফা বাদী হয়ে ৫ জনকে আসামী করে নাটোর আদালতে মামলা দায়ের করেন। ভুক্তভোগী ওই পরিবারটি নিজ বাড়িতে বসবাস করতে না পেরে অন্যের বাড়িতে মানবেতর জীবন যাপন করছেন। এমন পরিস্থিতিতে নিজ বাড়ির ভিটায় ফিরে স্বাভাবিক জীবন-যাপনের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনে প্রশাসনের সুদৃষ্টি কামনা করেন ভুক্তভোগী পরিবারটি । এব্যাপারে অভিযুক্ত সিদ্দিকুর রহমান বলেন, তাদের বাবা নিজে জমি-জমা ভাগাভাগি করে দিয়েছেন। হাসানুজ্জামান যে জায়গায় থাকতো সে জায়গাটি তার নিজের। সেখান থেকে নিজের জমিতে সরে যেতে বলা হলেও দীর্ঘদিন অতিবাহিত হলেও তার সৎ ভাই হাসানুজ্জামান সরেনি। বাগাতিপাড়া থানার ওসি নাজমুল হক বলেন, বিষয়টি তার জানা নেই। তবে ভুক্তভোগী পরিবার অভিযোগ করলে তিনি ব্যবস্থা গ্রহন করার আশ্বাস দেন।