নরসিংদীতে ভ্রমনের নামে অপসাংস্কৃতিক কর্মকান্ড রোধে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান

আমজাদ হোসেন, নরসিংদী প্রতিনিধিঃ নরসিংদীতে ঈদকে কেন্দ্র করে অপসাংস্কৃতিক কর্মকান্ড ও কোভিড-১৯ সংক্রমন রোধে জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হয়েছে।

বুধবার (০৫ আগস্ট) বিকালে থেকে রাত পর্যন্ত জেলা প্রশাসক সৈয়দা ফারহানা কাউনাইনের নির্দেশনায় নরসিংদী উপজেলার নাগরিয়াকান্দি শেখ হাসিনা সেতু, নজরপুর ও মেঘনা নদীতে এই ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করা হয়।

নরসিংদী সদর উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. শাহ আলম মিয়া, এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট মো.শাহরুখ খান ও সারোয়ার রাব্বী সনেটের নেতৃত্বে এ ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালিত হয়।ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা এ সময় জনসাধারনের মাস্ক পরিধান ও স্বাস্থ্য বিধি প্রতিপালন নিশ্চিত করতে সচেতনতা ও জরিমানা করা হয়।

উঠতি বয়সের যুবকদের লাইসেন্সবিহীন মোটর বাইক নিয়ে বাইক রেসিং নিষিদ্ধকরণ ও আইনের আওতায় এনে জরিমানা করা হয়েছে। নৌ-যানে সাউন্ড বক্স বাজিয়ে বখাটেপনা নিষিদ্ধকরণ ও অপ্রয়োজনীয়ভাবে ব্রিজে গণজামায়েত নিষিদ্ধ করা হয়। নদীর কূল ঘেষে অবৈধ ভাসমান দোকান বসা নিষিদ্ধ করা হয়।

সন্ধ্যার পরে ব্রিজের দুই প্রান্ত সংলগ্ন হোটেল,রেস্টুরেন্ট ও ব্রিজ সংলগ্ন রাস্তারুইপাশে সাউন্ডবক্স বাজিয়ে নাচ-গান করা যাবে না। করোনা কালিন সময়ে বিভিন্ন বিধি নিষেদ ধাকলেও তা উপেক্ষা করে সম্প্রতি সময়ে মেঘনা নদীতে নৌকা ভ্রমনের নামে উঠতি বয়সের ছেলেরা উৎশৃঙ্খলা বেয়াপন্নায় মেতে উঠেছে।তাছাড়া প্রতিদিন সকাল থেকে রাত বারটা পর্যন্ত মেঘন্ নদীর নাগরিকান্দিস্থ শেখ হাসিনা সেতুর উপড় থাকে হাজারো মানুষের ভীড় ।

উল্লেখ্য যে, গত মঙ্গলবার (৪ আগস্ট) বিকালে ব্রিজ সংলগ্ন এলাকায় উঠতি বয়সের ছেলেদের বখাটেপনায় লিপ্ত দুই গ্রুপের সংঘর্ষে একজন স্কুল ছাত্র নিহত হয়। তবে জনস্বার্থে প্রশাসনে এ অভিযান অব্যাহত থাকবে বলে জানা যায়।