নতুন রাজনৈতিক দল ‘নৈতিক সমাজ’

‘নৈতিক সমাজ’ নামের নতুন একটি রাজনৈতিক দলের ঘোষণা দিয়েছেন সাবেক মেজর জেনারেল আ ম স আ আমিন। মঙ্গলবার রাজধানীর জাতীয় প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে এ দল গঠনের ঘোষণা দেওয়া হয়।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে বক্তব্য দেন- গণফোরামের সভাপতি ড. কামাল হোসেন। এছাড়া আরওউপস্থিত ছিলেন

গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা জাফরুল্লাহ চৌধুরী ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের অধ্যাপক আসিফ নজরুল।

আ ম স আ আমিন ২০০১ সালে কুড়িগ্রাম-২ আসন থেকে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন নিয়ে নির্বাচন করেন। সর্বশেষ একাদশ

জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে তিনি গণফোরামে যোগ দেন এবং একই আসন থেকে নির্বাচন করেন। রাজনীতিতে নীতিমান

নেতৃত্ব ও নৈতিক মূল্যবোধ তৈরির উদ্দেশ্য নিয়ে এবার রাজনৈতিক দল গঠন করলেন বলে জানান তিনি।

সংবাদ সম্মেলনে ড. কামাল হোসেন নতুন দলটিকে স্বাগত জানিয়ে বলেন, অসৎ মানুষ চিরস্থায়ীভাবে নেতৃত্ব দিতে পারেনি, পারবেও না।

অন্যায়ের বিরুদ্ধে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে।

‘নৈতিক সমাজ’ দলটির প্রতি শুভকামনা জানিয়ে ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, প্রতিটি ক্ষেত্রে নৈতিকতার মৃত্যু হয়েছে।

সংখ্যালঘুদের ওপর একের পর এক অত্যাচার হচ্ছে। ক্ষমতাসীন দলের লোকেরাই এসব করেছে। নৈতিকতা বোধের অভাবে এসব হচ্ছে।

হেফাজতের কর্মীদের নিহতের ঘটনার সমালোচনা করেন তিনি।

অধ্যাপক আসিফ নজরুল বলেন, ‘সমাজ থেকে আমরা নৈতিকতা হারিয়ে ফেলেছি। নৈতিকতা না থাকলে কিছুই থাকে না।

নৈতিকতা থাকলে অন্যায়ের বিরুদ্ধে দাঁড়ানো যায়।’

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সফরের বিরোধিতা করার কারণে আন্দোলনকারী বাম সংগঠন ও নুরদের সংগঠনের কর্মীদের

ওপর হামলার নিন্দা জানিয়ে তিনি বলেন, হাটহাজারীতে হেফাজতের কর্মীরা থানার কাচ ভেঙেছিল, তাই তাদের গুলি করে মেরে ফেলা হয়েছে।

এটা কোনো আইনে আছে? হেফাজতকে কারা প্রশ্রয় দিয়ে এই জায়গায় এনেছে? বিএনপি, জামায়াত, বাম দলগুলোকে রাজনীতি করতে না দিয়ে কী বার্তা দেওয়া হচ্ছে?

বিশ্বের কাছে দেখানো হচ্ছে প্রধান রাজনৈতিক প্রতিপক্ষ হচ্ছে হেফাজত, যারা মধ্যযুগীয় কায়দায় কথা বলে।

সরকার হেফাজতের উত্থানের জায়গা করে দিয়েছে।

নতুন রাজনৈতিক দল হিসেবে আত্মপ্রকাশের কারণ হিসেবে আ ম স আ আমিন বলেন, দেশে নৈতিক মূল্যবোধের ধস নেমেছে।

বড় দলগুলো ভালো মানুষদের রাজনীতিতে আনতে পারছে না। মানুষ দেশের ভবিষ্যৎ নিয়ে উদ্বিগ্ন। সমাজ-সংস্কৃতিতে নৈতিকতাবোধের অভাব দেখা দিয়েছে।

রাজনীতিতে নীতিমান নেতৃত্ব তৈরি করতে হবে। এসব পূরণ করতেই নৈতিক সমাজ কাজ করবে।

সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন- সাবেক বিচারপতি আবদুস সালাম মামুন, সাবেক মেজর মুজিবুল হক প্রমুখ।