নওগাঁয় করোনাভাইরাসে নমুনা দিয়ে আসার পর যুবকের মৃত্যু

আব্দুর রশীদ তারেক, নওগাঁ জেলা প্রতিনিধি : নওগাঁর বদলগাছীতে করোনা উপসর্গ নিয়ে সোহাগ হোসেন (২৩) নামে এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে। শুক্রবার (১২ জুন) সন্ধ্যা ৭টার দিকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। শনিবার (১৩জুন) সকাল সাড়ে ৭টার দিকে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়। গত সোমবার (৯জুন) উপজেলা স্বাস্থ কমপ্লেক্সে ওই যুবক নমুনা দিয়ে আসে।
রিপোর্ট এখনো পাওয়া যায়নি। সোহাগ হোসেন উপজেলার মিঠাপুর ইউনিয়নের ইসমাইলপুর গ্রামের মৃত গোলাম মোস্তফার ছেলে। তিনি ঢাকা পোশাক কারখানায় চাকরি করতেন। নিহতের চাচাতো ভাই মাহমুদুল হাসান বলেন, ঢাকাতে থাকা অবস্থায় সোহাগ হোসেন জ্বর ও সর্দিতে ভুগছিলেন। ওই অবস্থায় গত রোববার (৭জুন) বাড়িতে চলে আসে। এর দুইদিন পর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে গিয়ে সোহাগ নমুনা দিয়ে আসে। নমুনা দিয়ে আসার পর থেকে আরো বেশি অসুস্থ হয়ে পড়ে। শ্বাসকষ্ট বেড়ে যাওয়ায় নেবুলাইজার মেশিন সংগ্রহ করে নেবুলাইজার দেয়া হয়। কিন্তু তেমন উপকার পাওয়া যায়নি।
এরপর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে যোগাযোগ করা হলে তাকে রাজশাহীতে নিতে বলা হয়। শুক্রবার বেলা ১১টার দিকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সন্ধ্যা ৭টার দিকে মারা যায়। তিনি ক্ষোভ করে বলেন, ‘জীবিত থাকা অবস্থায় কারো তেমন আগ্রহ দেখা যায়নি। কিন্তু মারা যাওয়ার অনেকের আগ্রহ দেখা যায়।’ লাশ গাড়ি থেকে নামানো শুরু করে দাফন-কাফন যাবতীয় কার্যক্রম করেন বদলগাছী থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) আরিফুল ইসলাম ও উপ-পরিদর্শক (এসআই) সরোয়ার হোসেন এবং ইসলামী ফাউন্ডেশনের কয়েকজন।
এছাড়া জানাযর ইমামতি করেন ইসলামী ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে ইমাম মাহমুদুল হাসান। শনিবার সকাল সাড়ে ৭টার দিকে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়। উপজেলা ইউএনও স্যার ফোন দিয়ে সার্বিক খোঁজ খবর নিয়েছেন। বদলগাছী উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) মো: আবু তাহের বলেন, যথাযথ নিয়ম মেনে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে। এছাড়া নিহতের পরিবারের সকলকে বাড়িতে থাকতে বলা হয়েছে। উপজেলা মেডিকেল টিম থেকে ওই পরিবারের সকলের নমুনা সংগ্রহ করা হবে।