নওগাঁর সাপাহারে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু ও প্রধানমন্ত্রীর কটূক্তি  কারী মেহেদী মাসুদ গ্রেফতার

আব্দুর রশীদ তারেক, নওগা জেলাঁ প্রতিনিধি: নওগাঁর সাপাহারে জাতির জনক বঙ্গবন্ধ শেখ মুজিবর রহমান ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে কে নিয়ে কটূক্তি কারী পলাতক আসামি মেহেদী মাসুদ (২৫) কে পুলিশ গ্রেফতার করছে । শনিবার দিবাগত রাত্রি ৯’টার দিকে বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে সাপাহার বাজার এলাকা থেকে পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে। মেহেদী মাসুদ উপজেলার আশড়ন্দ কাটনী পাড়ার মৃত আব্দুর রশিদ এর ছেলে। গত ১২মে পাতাড়ী ইউনিয়ন ছাত্রলীগ সভাপতি ও জালশুকা গ্রামের সাইদুর রহমান স্থানীয় দলীয় কার্যালয়ে বসে দলীয় মিটিং করছিলেন।
মিটিং শেষে ছাত্রলীগ নেতা তার ফেসবুক আইডিতে দলীয় মিটিং ও বঙ্গবন্ধুর ছবি সহ একটি পোষ্ট করেন। এসময় ওই বাজারে কম্পিউটার কম্পোজ দোকানের মালিক মেহেদী মাসুদ উক্ত পোষ্টের বিপরিতে ছাত্রলীগ রাষ্ট্রীয় মূর্তি পুজার দল” মূর্তিপুজা আর মূজিব পূজার মৌলিক পার্থক্য নেই “উভয়টি শিরক,দুটিকেই বয়কোট করুন, ঈমান বাচাঁন, বলে বাজে কমেন্টস করেন।
এছাড়াও জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমানের শ্রদ্ধার ছবি, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর নমস্কারে ২ টি ছবি যুক্ত করে বাজে কটূক্তিমুলক কমেন্টস করে যা স্বাধীনতা ও দেশ বিরোধীর সামিল, এমন কমেন্টস জাতির পিতা ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রী কে ,অসম্মানজনক, মানহানিকর,রাষ্ট্রের মান ক্ষুন্নকরা, ধর্মীয় অনুভূতে আঘাত, জনসাধারণের মধ্যে অস্থিরতা ও বিশৃংখলা সৃষ্টির কারনে ওই দিনই ছাত্রলীগ নেতা সাইদুর রহমান থানায় উপস্থিত হয়ে ডিজিটাল নিরাপত্তা ও দেশের প্রচলিত আইনে কমেন্টকারী মেহেদী মাসুদ এর নামে একটি মামলা দায়ের করেন।
থানায় মামলা দায়েরের সংবাদ পেয়ে গত ২৪ দিন পলাতক ছিলো মামলার আসামি মেহেদী মাসুদ । এর পর সাপাহার থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আব্দুল হাই এর নির্দেশে এসআই নয়ন কর ডিজিটাল আধুনিক তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহার করে পলাতক আসামির প্রতিদিনেরর লোকেশন ট্যাগকরে নিবিড় তৎপরতার মাধ্যমে শনিবার দিবাগত রাত আনুমানিক ৯ টার দিকে সাপাহার বাজার থেকে সেই কটূক্তি কারি পলাতক আসামি কে গ্রেফতার করে থানায় নিয়ে আসেন। এ বিষয়ে ওসি আব্দুল হাই জানান, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে নিয়ে কটূক্তি কারী পলাতক আসামি মেহেদী মাসুদ কে গ্রেফতার করা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে থানায় একটি মামলাও হয়েছে। আসামি কে রোববার দুপুরে আদালতের মাধ্যমে নওগাঁ জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।