দ্বিতীয় দিনে ৬৭ নমুনা পেল ভেটেরিনারি ল্যাব

 মোঃরাশেদ, চট্টগ্রাম প্রতিনিধিঃ প্রথম দিনে ২০টি নমুনা দিয়ে পরীক্ষা চললেও দ্বিতীয় দিনে ৬৭টি নমুনা পেয়েছে ভেটেরিনারি ও অ্যান্ড এনিমেল সাইন্সেস বিশ্ববিদ্যালয়ের ল্যাব। প্রথম দিনে ২০টির মধ্যে কোনো করোনা পজিটিভ শনাক্ত হয়নি। নমুনার সংখ্যা পর্যায়ক্রমে বাড়ার বিষয়টি গতকালেই জানানো হয়েছিল। সেই হিসেবে রোববার ৬৭টি নমুনা দেয়া হয়েছে উল্লেখ করে ভেটেরিনারি বিশ্ববিদ্যালয়ের করোনা পরীক্ষা কার্যক্রমের ইনচার্জ ও প্যাথলজি বিভাগের অধ্যাপক ড. জুনায়েদ সিদ্দিকী বলেন, প্রথম দিন একটু প্র্যাকটিসের বিষয় ছিল তাই কম দেয়া হয়েছিল।

রোববার আমাদের ৬৭টি নমুনা দেয়া হয়। শনিবার প্রাপ্ত নমুনার মধ্যে কোনো পজিটিভ পাওয়া গিয়েছিল কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, ২০টির মধ্যে আমরা কোনো পজিটিভ পাইনি। আজকের (রোববার) পরীক্ষা শেষ করতে রাত ৯টা পর্যন্ত সময় লেগে যেতে পারে। নমুনার সংখ্যা দিন দিন বাড়বে উল্লেখ করে ড. জুনায়েদ সিদ্দিকী চ্যানেল এস কে বলেন,‘পর্যায়ক্রমে আমরা ১০০ পর্যন্ত নমুনার পরীক্ষা করতে সক্ষম হবো। এছাড়া যদি প্রয়োজন হয় আরো পাঁচটি মেশিনও আমাদের প্রস্তুত রয়েছে।

’ ভেটেরিনারি বিশ্ববিদ্যালয়ে কোনো নমুনা জমা নেয়া হয় না। ফৌজদারহাটে অবস্থিত বাংলাদেশ ইন্সটিটিউট অব ট্রপিক্যাল অ্যান্ড ইনফেকসাস ডিজিজ (বিআইটিআইডি) থেকে নমুনা ভেটেরিনারিতে পাঠানো হয়। পরীক্ষার পর সেই রিপোর্ট বিআইটিআইডিতে পাঠানো হবে। উল্লেখ্য, চট্টগ্রামে প্রতিদিন ৩৫০ টির মতো করোনা নমুনা পাওয়া যায়। কিন্তু ল্যাবের অভাবের কারণে সব পরীক্ষা করা যাচ্ছিল না। একমাত্র বিআইটিআইডির ল্যাবে ১৮৪টি পর্যন্ত সর্বোচ্চ নমুনার পরীক্ষা করা গেছে। এতে একেকটি নমুনা পরীক্ষার ফলাফল পেতে তিন থেকে চারদিন সময় লেগে যায়। এই অচলাবস্থা দূর করতে ভেটেরিনারি বিশ্ববিদ্যালয়টির ল্যাব ব্যবহারে এগিয়ে আসে স্বাস্থ্য অধিদফতর। এখানে একটি পিসিআর মেশিনে সর্বোচ্চ ১০০টি পর্যন্ত পরীক্ষা করা সম্ভব।