দৌলতপুরে ত্রিমুখী বন্দুকযুদ্ধে মাদক ব্যবসায়ী নিহত : অস্ত্র মাদক উদ্ধার

আছানুল হক, দৌলতপুর প্রতিনিধিঃ কুষ্টিয়া দৌলতপুর উপজেলার রামকৃষ্ণপুর ইউনিয়নে মুন্সিগঞ্জ গ্রামের মৃত নিয়ামত মন্ডলের ছেলে কুদরত মাদক ব্যবসায়ী ত্রিমুখী বন্দুকযুদ্ধে নিহত হয়েছে। পুলিশ জানায়, শুক্রবার দিনগত রাতে , দৌলতপুর থানা পুলিশ পরিদর্শক নিশিকান্ত সরকারের নেত্রীতে,সঙ্গীয় অফিসার ফোর্স এস আই রোকন, এস আই মেহেদি, এ এস আই সাহাজান, এ এস আই আমিনুর,কং মুজাফফর,সামিম,জিয়া ও নেকবর থানা এলাকায় মাদক উদ্ধার, ওয়ারেন্ট তামিল বিশেষ অভিযান পরিচালনা করাকালিন সময়ে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারি ডাংমড়কা গ্রামস্থ জহুরুল হকের ইট ভাটা নামক স্থানে মাদক ক্রয় বিক্রয় চলিতেছে সংবাদ প্রাপ্ত হইয়া রাত অনুমানিক ১ টার সময় অভিযান পরিচালনা করিলে।পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে মাদক ব্যবসায়ীরা দুই দলে বিভক্ত হয়ে এলোপাতাড়ি ও পুলিশকে লক্ষ করে গুলিবর্ষণ শুরু করে এমতাবস্থায় পুলিশ সরকারী জান মাল রক্ষার্থে পাল্টা গুলি চালালে মাদক ব্যবসায়ীর পিছু হেটে পালিয়ে যায়। এমন সময় পুলিশের ডাক চিৎকারে আশেপাশের এলাকায় থেকে এলাকাবাসী ঘটনা স্থানে চলে আসে। এলাকাবাসীর উপস্থিতিতে ঘটনা স্থানে তল্লাশি চালালে আহত অবস্থাতে পড়ে থাকতে দেখা যায় এক জন ব্যক্তিকে। তাকে উদ্ধার করে দৌলতপুর হাসপাতালে নিলে কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। ঘটনাস্থল থেকে একটি বিদেশী পিস্তুল, তিন রাউন্ড গুলি, একটি ম্যাগাজিন, ৪৩ বতল ফেন্সিডিল ও একটি ধারালো হাসুয়া উদ্ধার করা হয়েছে। দৌলতপুর থানা অফিসার ইনচার্জ এস এম আরিফুর রহমান জানান, মাদক ক্রয়-বিক্রয় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান পরিচালনা কালিন সময়ে ত্রিমুখী বন্দুকযুদ্ধে সন্ত্রাসীদের গুলিতে মাদক ব্যবসায়ী আহত হয়। তাকে উদ্ধার দৌলতপুর হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য নিয়ে আসলে কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে মৃত বলে ঘোষণা করেন । ঘটনাস্থল থেকে একটি বিদেশী পিস্তুল, তিন রাউন্ড গুলি, একটি ম্যাগাজিন, ৪৩ বতল ফেন্সিডিল ও একটি ধারালো হাসুয়া উদ্ধার করেছে পুলিশ । এই অভিযানে তিন জন পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন। উপস্থিত এলাকাবাসী তার পরিচয় নিশ্চিত করেন, সে রামকৃষ্ণপুর ইউনিয়নের মুন্সিগঞ্জ গ্রামের মৃত নিয়ামত মন্ডলের ছেলে কুদরত । কুদরত দীর্ঘদিন যাবৎ বড় মাপের মাদক ব্যবসা চালিয়ে আসছে । তাহার নামে দৌলতপুর থানায় মাদক আইনে ৬ টি মামলা আছে।