দেশের বাইরে যাচ্ছে “কাঠবিড়ালী”

মুক্তির আগে কাঠবিড়ালী সিনেমা সেন্সর বোর্ডের সদস্যের মন জয় করেছিল। সেন্সর বোর্ডের সদস্য খোরশেদ আলম জানান। মুক্তির পর ছবিটি দর্শকের মনও জয় করেছে। তবে ভালো গল্পের এই ছবি ব্যবসায়িকভাবে সফলতা পেলে ভালো লাগাটা আরও অনেকটাই বাড়ত, জানালেন মধুমিতা প্রেক্ষাগৃহের কর্ণধার ইফতেখার উদ্দিন।
গেল বছরের ২৭ ডিসেম্বর কাঠবিড়ালী ছবির একটি বিশেষ প্রদর্শনী করা হয় পাবনার ভাঙ্গুড়ার গজারমারা গ্রামে। সেদিন সন্ধ্যায় ছবিটি প্রায় ৫০০ দর্শক উপভোগ করেন। উদ্বোধনী প্রদর্শনী উপলক্ষে শিল্পী ও কলাকুশলীদের সঙ্গে ছবির নায়িকা স্পর্শিয়াও ঢাকা থেকে ওই গ্রামে যান। মানবিক সম্পর্কের অনেক চড়াই-উতরাই থাকে, তা নিয়ে ছবিটি।
ঢাকাসহ দেশের ১৮ প্রেক্ষাগৃহে ১৭ জানুয়ারি মুক্তি পেয়েছে কাঠবিড়ালী। দর্শক সন্তুষ্ট হতে পারলেও প্রেক্ষাগৃহ কর্তৃপক্ষ ব্যবসায়িকভাবে অতটা সন্তুষ্ট নন বলে জানালেন। শ্যামলী সিনেপ্লেক্সের হাউস ম্যানেজার আহসান উল্লাহ বলেন, ‘পুরোনো সিনেমা দিয়ে বছর শুরু হয়েছিল। আশা করেছিলাম, নতুন এই ছবি দিয়ে ব্যবসাটা করতে পারব। কিন্তু তা আর পারলাম কই। প্রথম দুই দিন মোট আসনের অর্ধেকের বেশি দর্শক থাকলেও, এখন তা অর্ধেকের নিচে নেমে গেছে। ছবিটির গল্প ভালো, কিন্তু পরিবার নিয়ে কেউ আসছেন না। তাই ব্যবসাও হচ্ছে না। যাঁরা দেখছেন, বেশির ভাগ তরুণ-তরুণী।’
মধুমিতা মুভিজের কর্ণধার ইফতেখার উদ্দিন বলেন, গল্পে ট্র্যাজেডি আছে ঠিকই, কিন্তু অভিনয়শিল্পী নির্বাচন দুর্বল হয়ে গেছে। বড় তারকারা থাকলেও এ ধরনের গল্প নিয়ে ছবিটি ব্যবসা করতে পারত। তবে যাঁরাই এসেছেন, তাঁদের ইতিবাচক প্রতিক্রিয়া পাওয়া গেছে। তিনি আরও বলেন, এ ধরনের ছবি দিয়ে প্রেক্ষাগৃহের বাতি জ্বালিয়ে রাখা মুশকিল। ভালো ছবি আসতে হবে। বড় বড় তারকার ছবি যথাবিরতিতে মুক্তি দেওয়া সম্ভব না হলে খুব বিপদ।
কাঠবিড়ালী সিনেমার কেন্দ্রীয় চরিত্রে অভিনয় করেছেন অর্চিতা স্পর্শিয়া। আরও আছেন আবীর, শাওন জামান, শিল্পী সরকার অপু প্রমুখ। ২০১৭ সালের মার্চ মাসের প্রথম সপ্তাহে কাঠবিড়ালী ছবিটির শুটিং শুরু করেছিলেন পরিচালক নিয়ামুল মুক্তা।
এদিকে দেশের বাইরেও প্রদর্শিত হবে ছবিটি। ২৫ জানুয়ারি থেকে সুইজারল্যান্ডের জুরিখের বাংলা স্কুলের হলরুমে প্রদর্শিত হবে এটি। এরপর ইতালিতেও প্রদর্শনী হবে।
ছবির পরিচালক নিয়ামুল মুক্তা বলেন, ২৫ জানুয়ারি থেকে ১ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত চারটি শো হবে ছবিটির। এর পরের সপ্তাহে ইতালিতে বেশ কয়েকটি প্রদর্শনী হবে। কথাবার্তা চূড়ান্ত হয়েছে। প্রদর্শনীর তারিখ দু–এক দিনের মধ্যেই জানানো হবে। দেশে ছবিটি মুক্তি পেয়েছে মাত্র কয়েক দিন। আলোচনাও হচ্ছে ছবিটি নিয়ে। দেশের বাইরে প্রদর্শনীর সুযোগ পাওয়াতে ভালো লাগছে। দেশের বাইরে যত বেশি বাংলাদেশি ছবি প্রদর্শনের সুযোগ হবে, ততই সমৃদ্ধ হবে বাংলা সিনেমা।
এরপর কানাডা ও অস্ট্রেলিয়াতেও ছবিটির প্রদর্শনী হবে বলে জানান এই পরিচালক। কাঠবিড়ালী ছবিটির চিত্রনাট্য লিখেছেন তাসনিমুল তাজ।