দশমিনায় ভাইস চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে শিক্ষকদের অভিযোগ

সঞ্জয় ব্যানার্জী, দশমিনা-বাউফল প্রতিনিধি:  পটুয়াখালীর দশমিনা উপজেলা পরিষদ ভাইস চেয়ারম্যান নাসির উদ্দিন পালোয়ানের বিরুদ্ধে ৩২জন প্রাথমিক শিক্ষক বৃহষ্পতিবার রাতে দশমিনা থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। থানা পুলিশ অভিযোগটি তদন্ত পুর্বক নথিভুক্ত করা হবে বলে জানান। লিখিত অভিযোগের সূত্রে জানা গেছে, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান নাসির উদ্দিন পালোয়ান উপজেলায় ৩য় ধাপের ১৪টি সদ্য জাতীয় করন প্রাথমিক বিদ্যালয়ের গেজেট প্রকাশিত হওয়ার পর শিক্ষকদের বিল করার জন্য প্রতি শিক্ষকের কাছ থেকে দুই লাখ টাকা করে দাবি করেন।

কিন্তু ১৪টি বিদ্যালয়ের ৫৩ জন শিক্ষক ভাইস চেয়ারম্যানের ওই অবৈধ প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় তাদের বিভিন্ন ভাবে হুমকি ধামকি অব্যাহত রেখেছেন। এ ঘটনায় চাকরীর নিশ্চয়তা ও জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে গত ১১ জুন বৃহস্পতিবার ৩২ জন শিক্ষক। দশমিনা থানায় উপস্থিত হয়ে ভারপ্রপ্ত কর্মকর্তার কাছে লিখিত অভিযোগ দেন। ১৪৩ নম্বর চরশাহজালাল আদর্শ সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আবুল হাসেম অভিযোগ করে জানান, লিখিত অভিযোগটি থানার ওসি এস. এম জালাল উদ্দিন নথিভুক্ত না করে তালবাহানা করছেন।

তিনি আরও অভিযোগ করে বলেন, থানায় অভিযোগ দায়েরের পর থেকে ভাইস চেয়ারম্যান নাসির পালোয়ান ও তার বাহিনী ওই অভিযোগ প্রত্যাহার না করলে চাকুরীচ্যুতসহ শারিরীক নির্যাতনের অব্যাহতভাবে হুমকি দিয়ে আসছেন। সদ্য জাতীয়করকৃত শিক্ষক সমিতির সভাপতি ২২ নং মধ্য গুলি আউলিয়াপুর সরকারী প্রাথমিক বিদালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুর রহমান জানান, অবৈধ সুবিধা না পেয়ে ভাইস চেয়ারম্যান শিক্ষকদের চাকুরীচ্যুত করা সহ বিভিন্নভাবে হুমকি দিচ্ছেন।

এ ব্যাপারে উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান নাসির পালোয়ান স্থানীয় সংবাদকর্মীদের জানান, থানায় আমার বিরুদ্ধে করা শিক্ষকদের অভিযোগ সম্পূর্ন মিথ্যা ও ভিত্তিহীন। এ ব্যাপারে দশমিনা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) এস এম জালাল উদ্দিন জানান, অভিযোগটি নথিভুক্ত করা হয়নি তবে এস আই আব্দুল উহাবকে ঘটনাটি তদন্তের জন্য দ্বায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।