দলীয় মনোনয়নে কড়াকড়ি করতে যাচ্ছে আওয়ামী লীগ

সংসদ নির্বাচনে দলীয় মনোনয়নপত্র বিতরণের নিয়ম আরো কড়াকড়ি করতে যাচ্ছে আওয়ামী লীগ। কারা দলীয় আবেদনপত্র সংগ্রহ করতে পারবেন সেই যোগ্যতা নির্ধারণ করে দেয়া হবে বলে জানান দলের নীতি নির্ধারক নেতারা। সাবেক আমলা, ব্যবসায়ী, ইউনিয়ন বা ওয়ার্ড পর্যায়ের সাধারণ কর্মীরাও সংসদ সদস্য পদে দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশী হওয়ায় বিব্রত হয়ে এমন সিদ্ধান্ত নিতে যাচ্ছে আওয়ামী লীগ।

জাতীয় সংসদ নির্বাচনে কোন পর্যায়ের নেতাকর্মীরা দলীয় প্রার্থী হওয়ার আবেদন করতে পারবেন আওয়ামী লীগের গঠনতন্ত্রে এব্যাপারে স্পষ্ট কোন নীতিমালা নেই। ফলে একাদশ সংসদ নির্বঅচনের আগে দলীয় মনোনয়ন ফরম বিক্রিতে রেকর্ড হয়। তিনশ আসনে মনোনয়ন প্রত্যাশী ছিলেন চার হাজার ২৩ জন। সাম্প্রতিক সময়ে কয়েকটি উপনির্বাচনে বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মী প্রার্থী হওয়ার আবেদন করেন।

ঢাকা-১৮ আসনে ৫৬ জন, নাওগাঁ-৬ আসনে ৩৪ জন, ঢাকা-৫ আসনে ২০ জনসহ পাঁচটি আসনের উপনির্বাচনে ক্ষমতাসীন দলের মনোনয়ন প্রত্যাশীর সংখ্যা ১৪০। মনোনয়নপত্র সংগ্রহকারীদের তালিকায় ৫০ বছরের অভিজ্ঞ নেতা থেকে শুরু করে ওয়ার্ড কাউন্সিলর, ছাত্রলীগের প্রাথমিক সদস্য, আওয়ামী লীগের ইউনিয়ন ও ওয়ার্ড পর্যায়ের নেতাকর্মী ও সহযোগী সংগঠনের সদস্যরাও আছেন। স্থানীয় প্রবীণ নেতারাও এদের অনেককেই চেনেন না।

বিষয়টিকে স্থানীয় পর্যায়ে দলের ত্যাগী ও যোগ্য নেতাদের জন্য বিব্রতকর হিসেবেই দেখছেন কেন্দ্রীয় নেতারা। তারা বলছেন, যে কেউ যেন দলীয় মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করতে না পারে তার জন্য একটি নীতিমালা করা হবে।

আওয়ামী লীগের কেন্দ্রিয় কার্যনির্বাহী সংসদের পরবর্তি বৈঠকেই বিষয়টি নিয়ে আলোচনা হবে বলে জানান দলের এই নেতা।