তুরাগে ভাঙচুর চালিয়ে বিকাশের দোকান লুট, গ্রাম ছাড়া বাদী

ছবি: ভুক্তভোগী মামুনুর রশিদ ও অভিযুক্ত শাহেনশাহ

নিজস্ব প্রতিবেদক: রাজধানীর তুরাগে বিকাশের দোকানে ভাঙচুর চালিয়ে লুটপাটের ঘটনায় মামলা দায়ের করে উল্টো প্রাণনাশের আশঙ্কায় পালিয়ে বেড়াচ্ছেন মামলার বাদী। ভুক্তভোগী মামুনুর রশিদ জানান, দীর্ঘ দিন ধরে তার কাছে চাঁদা দাবী করে আসছিলো তুরাগের ডিয়াবাড়ি এলাকার লেহাজ উদ্দিনের মাদকাসক্ত বখাটে ছেলে শাহেনশাহ (৩২)।

এর আগেও দোকান উঠিয়ে দেয়ার নানা ভয় ভীতি দেখিয়ে হাতিয়ে নেয় ৩৫ হাজার টাকা। পরবর্তীতে গত ৩মে মামুনের কাছে আরও ১৫ হাজার টাকা চাঁদা দাবী করে বখাটে শাহেনশাহ । টাকা দিতে অস্বীকৃতি জানালে দোকানের ফ্রীজ, গ্লাস ও অন্যান্য জিনিস পত্র ভাঙচুর করে বখাটেরা। এক পর্যায়ে বাঁধা দিলে মামুনকেও এলোপাথাড়ি পিটিয়ে আহত করে।

এসময় দোকানের ক্যাশ বাক্স থেকে নগদ ১ লাখ ৯৭ হাজার টাকা, মোবাইল ফোন ও অনান্য ইলেকট্রনিক ডিভাইস নিয়ে সটকে পড়ে মাদকাসক্ত বখাটে শাহেনশাহ। জানা গেছে, এ ঘটনায় বাদী হয়ে প্রথমে অভিযোগ পত্র দায়ের করলে পরবর্তীতে মামলা নেয় পুলিশ। যার মামলা নম্বার ০২,০৫/০৫/২০২০। তবে রহস্যজনক হলো এই ঘটনায় আসামীকে গ্রেফতার করলেও একদিন পর থেকেই এলাকায় প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়াচ্ছে বখাটে শাহেনশাহ। মামলা তুলে নিতে হুমকি দিচ্ছে বাদী মামুনুর রশিদকে।

এমন পরিস্থিতিতে জীবনের নিরাপত্তাহীনতায় দোকান বন্ধ রেখে ডিয়াবাড়ি এলাকা ছেড়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছেন মামুন। তার অভিযোগ শাহেনশাহকে নানা ভাবে ইন্ধন দিচ্ছে বিআরটিএর কতিপয় দালাল আব্দুল রহিম নামের এক ব্যক্তি।

এদিকে আসামীর বড় ভাই তুরাগ থানা যুবলীগের আহ্বায়ক নাসির উদ্দিন নাসিম তার ছোট ভাই শাহেনশাহের এমন কর্মকাণ্ডে বিব্রতকর পরিস্থিতিতে রয়েছেন জানিয়ে মাদকাসক্ত ভাইয়ের শাস্তি দাবি করেন। স্থানীয়রা জানান, এর আগেও চুরি ছিনতাই এর সাথে সম্পৃক্ত ছিল শাহেনশাহ।

মাদকাসক্ত হওয়ার কারনে নেশার টাকা জোগাতেই এলাকায় সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড চালিয়ে যাচ্ছে সে। এই বিষয়ে জানতে মামলার তদন্ত কারী কর্মকর্তা তুরাগ থানার এস আই আনোয়ারুল ইসলামকে মঙ্গলবার বিকেলে মুঠোফোনে এ প্রতিবেদককে জানান, মামলা দায়েরের পর অভিযুক্তকে গ্রেফতার করে কোর্টে চালান করা হয়েছিল।

এখন সে জামিনে মুক্ত আছে। তিনি বলেন মামলার এজাহারভুক্ত আসামির হুমকি ধামকিতে মামলার বাদী পালিয়ে বেড়াচ্ছে কিনা জানা নাই তবে সে যদি চায় তার দোকান খুলতে পারে তার নিরাপত্তা দেবে পুলিশ। মামলার বাদী অযথাই নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন বলে তার ধারণা। তুরাগ থানার অফিসার্স ইনচার্জ নুরুল মোত্তাকিনের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি ভুক্তভোগীর বিষয়টি দেখবেন বলে নিশ্চিত করেছেন।

মামলার এজাহার সুত্রে জানা যায়, গত ৩মে বিকেলে তুরাগের ডিয়াবাড়ি এলাকার স্থানীয় বাসিন্দা লেহাজ উদ্দিন এর ছেলে শাহেনশাহ (৩২) এর, এম আর ডট কম নামের বিকাশের দোকানে অতর্কিত ভাবে প্রবেশ করে ভাঙচুর চালিয়ে দোকানী মামুনুর রশিদ (২৮) কে এলোপাতাড়ি কিল-ঘুষি মেরে জখম করে।

পরবর্তীতে ক্যাশ ভেঙে ক্যাশ বাক্স থেকে নগদ ১ লাখ ৯৭ হাজার টাকা , রবি ও বাংলালিংকের ডিভাইস, ১১ টি বিভিন্ন মডেলের মোবাইল সেট ও প্রায় ১৭ হাজার টাকার এমবি ও মিনিট কার্ড লুট করে নিয়ে যায়। এসময় দোকানীর চিৎকারে আশপাশের লোকজন এগিয়ে এসে আহতকে উদ্ধার করলেও কৌশলে পালিয়ে যায় শাহেনশাহ।

পরবর্তীতে আহত দোকানী মামুনুর রশীদ কে টঙ্গী সরকারি হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হয়। এ ঘটনায় তুরাগ থানায় বাদী হয়ে মামলা দায়ের করে ভুক্তভোগী।