তানোরে স্কুলের নৈশ প্রহরীর হাতে নির্যাতনের স্বীকার প্রতিবন্ধী পরিবার

 মাহবুব জুয়েল, রাজশাহী তানোর প্রতিনিধি: তানোরে প্রতিবন্ধী পরিবারকে গ্রাম ছাড়া করতে পাশবিক নির্যাতন করছেন কাঁমারগা গ্রামের মসলেম আলীর পুত্র ও কাঁমারগা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দপ্তরি ও নৈশপ্রহরী মিলন আলী। এনিয়ে প্রতিবন্ধী ওই পরিবারটি চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন।
গ্রামবাসী ও ভুক্তভোগী প্রতিবন্ধী পরিবার সুত্রে জানা গেছে, তানোরের কাঁমারগা ইউপির কাঁমারগা গ্রামের প্রতিবন্ধী হাবিবুর রহমান পরিবার নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে বসবাস করছেন। গত সোমবার বিকালে মিলনের সাবেক দ্বিতীয় স্ত্রীর সাথে গল্প প্রতিবন্ধী হাবিবুরের স্ত্রী ও কন্যা করছিলেন। এ সময় মিলনের প্রথম স্ত্রী বিষয়টি দেখতে পেয়ে তাদের অকথ্য ভাষায় গালাগালি করে মিলনকে খবর দেয়। খবর পেয়ে মিলন এসে উত্তেজিত হয়ে প্রতিবন্ধীর স্ত্রীকে মাটিতে ফেলে পেটাতে থাকে প্রতিবন্ধী হাবিবুর ও তার কন্যা তাকে উদ্ধারে এগিয়ে এলে তাদেরকেউ মারপিট করে এবং শাড়ী কাপড় ছিড়ে শ্লীলতাহানী ঘটায়। কিন্তু মিলন গ্রামের প্রভাবশালী হওয়ায় তার বিরুদ্ধে কোথাও কোণ অভিযোগ করতে পারেননি প্রতিবন্ধী ওই পরিবার।
প্রভাবশালী নৈশপ্রহরী মিলন প্রতিবন্ধী পরিবারকে নির্যাতনের পর উল্টো তাদের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ করে গ্রাম ছাড়া করার হুমকি দিচ্ছেন। গ্রামের একাধীক ব্যাক্তি নাম প্রকাশ না করার সর্তে বলেন, মিলনের বিরুদ্ধে এর আগেও বেশ কয়েকটি নারী কেলেঙ্কারির অভিযোগ উঠলেও কেউ তার বিচার করতে পারেননি। এবিষয়ে জানতে চাইলে মিলন বলেন, ওই নারী তার অন্ডকোষ টিপে তাকে মেরে ফেলার চেস্টা করেছে, ওই নারীর কারণে তার পরিবার চরম নিরাপত্তাহীনতায় রয়েছে, তাকে গ্রামছাড়া করতেই হবে জানিয়ে সাংবাদিকদের এড়িয়ে যান তিনি।
এ বিষয়ে মিলনের পিতা মসলেম আলী বলেন, ওই মেয়ে বেয়াদব যত টাকা লাগে এবার তার ব্যবস্থা করা হবে জানিয়ে তিনিও সাংবাধিকদের এড়িয়ে যান। এব্যাপারে উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার বলেন, মিলনের বিরুদ্ধে উথাপিত অভিযোগের সত্যতা পেলে বিভাগীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। এনিয়ে তানোর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রাকিবুল হাসান বলেন, বিষয়ে কেউ কোন অভিযোগ করেন নি। প্রতিবন্ধী ওই পরিবার অভিযোগ করলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে বলেও জানান ওসি।