‘ঢাকা ড্রিম’ আসছে বাংলা নববর্ষে

প্রতিদিন ঢাকায় নতুন আসছে ১ হাজার ৭০০ মানুষ। সর্বশেষ একটি গবেষণা থেকে এমনটাই জানা গেছে। বাসযোগ্যতার দিক থেকে এ শহরের অবস্থান সবচেয়ে নিচে হওয়ার পরও মানুষ আসা থামছে না। নানা কারণে রাজধানীতে আসতে চাওয়া, আসতে বাধ্য হওয়া কিছু মানুষের স্বপ্ন ও স্বপ্নভঙ্গের গল্প নিয়ে নির্মিত হয়েছে চলচ্চিত্র ‘ঢাকা ড্রিম’। ২১ ডিসেম্বর শেষ হয়েছে ছবিটির শুটিং। শুরু হয়েছে সম্পাদনার কাজ। ছবির পরিচালক প্রসূন রহমান জানালেন, বাংলা নববর্ষে ছবিটি মুক্তি দেওয়ার পরিকল্পনা করা হয়েছে। সেভাবেই সব কাজ গোছানো হচ্ছে।

ছবি প্রসঙ্গে প্রসূন রহমান বলেন, ‘কাজের ক্ষেত্রে মাইগ্রেশন, মাইনরিটি ও নারীর গল্প আমার বিশেষ আগ্রহের বিষয়। সেগুলোর একটি “মাইগ্রেশন”, এ নিয়ে পরিকল্পিত ঢাকা ট্রিলজির প্রথম চলচ্চিত্র ‘ঢাকা ড্রিম’। আমরা সবাই বিভিন্ন জেলা থেকে ঢাকায় এসেছি। এটি এক ধরনের ইন্টারনাল মাইগ্রেশন। রাজধানীকেন্দ্রিক রাষ্ট্রব্যবস্থায় ধাবমান জনসংখ্যার চাপে বিপর্যস্ত এ নগরী। এ অবস্থায় প্রশাসনিক বিকেন্দ্রীকরণ কতটা জরুরি, তা একবারও উচ্চারণ না করেই বলার চেষ্টা এই চলচ্চিত্রে। ইচ্ছা আছে এর সিক্যুয়েল করার। ঢাকায় আসার কারণ অনেক। এই চলচ্চিত্রে ১০টি চরিত্রের মাধ্যমে ১০টি ভিন্ন কারণ দেখার সুযোগ হবে।’