ডুমুরিয়া আঠারো মাইলে কালবৈশাখী ঝড়ে পল্লি বিদ্যুতের ব্যাপক ক্ষয় ক্ষতি

 জাহাঙ্গীর আলম (মুকুল), ডুমুরিয়া খুলনা প্রতিনিধি: রোববার রাতে ডুমুরিয়া উপজেলার উপর দিয়ে বয়ে যাওয়া কালবৈশাখী ঝড়ের তান্ডবে ঘর-বাড়ির ও স্থাপনার পাশাপাশি পল্লী বিদ্যুৎ ব্যবস্থা ভেঙে পড়ে।ঝড়ের কবলে গাছপালা ভেঙে বিদ্যুৎ লাইনের তার ছিড়ে যায় লন্ডভন্ড হয়ে পড়ে চুকনগর অভিযোগ কেন্দ্রের পল্লী বিদ্যুৎ এর আওতাধীন অন্তত ১০কিলোমিটার লাইন।
চুকনগর অভিযোগ কেন্দ্রের লাইন ম্যান গ্রৈড (১) দেবদাশ আমাদের প্রতিনিধিকে জানায় ঝড়ের কবলে পড়ে চুকনগর আঠারো মাইল মাগুরাঘোনা চন্ডিপুর মালতিয়া আরশনগর বাদুড়িয়া ৩৩ কেভি ও ১১ কেভি লাইনের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়। একই সাথে ডুমুরিয়া শাহপুর সহ বিভিন্ন এলাকায় ১১ কেভি বৈদ্যুতিক লাইনের উপর গাছের ডালপালা ভেঙে ও গাছপালা উপড়ে পড়ে। ৩৩ কেভিসহ মোট ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে ১০ কিলোমিটার লাইন। কাল বৈশাখী ঝড়ের কবলে সবচেয়ে বেশী ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে আঠারো মাইলের বিদ্যুৎ ব্যবস্থা।
উপজেলার চুকনগর আঠারো মাইল সাব ম্টেশন এক নম্বর ফিডারের আওতাধীন বাদুড়িয়া আরশনগর মাগুরাঘোনা চন্ডিপুর মালতিয়া এলাকায় সড়কের পাশে ১১ কেভি বিদ্যুৎ লাইনের উপর গাছের ডাল ভেঙ্গে পড়ে। একইভাবে চুকনগর চাকুন্দিয়া কাঁঠালতলা এলাকাসহ বিভিন্ন এলাকায় বিদ্যুৎ লাইনের তারের উপর বড় বড় গাছের ডাল পালা ভেঙে পড়েছে। বিদ্যুৎ সংযোগ বন্ধ হয়ে যায়। এলাকায় তাৎক্ষনিক চুকনগর অভিযোগ কেন্দ্রের লাইন ম্যান গ্রৈড ১ দেবদাশ ও সহকারি সুফল সহ। রাত বারোটা পঁচিশ মিনিটে কিছু কিছু এলাকার বিদ্যুৎ লাইন চালু করতে সক্ষম হয়।
পরবর্তীতে প্রায় সারারাত অক্লান্ত পরিশ্রম করে ভোর রাত চারটার দিকে আঠারো মাইল উপ কেন্দ্রের এক নাম্বার ফিডারের আওতাধীন সকল বৈদ্যুতিক লাইন সচল করতে সক্ষম হয়। এ বিষয়ে চুকনগর অভিযোগ কেন্দ্রের ইনচার্জ বলেন প্রায় এক দিন পর পর কালবৈশাখীর ঝড়ো হাওয়ায় চুকনগর অভিযোগ কেন্দ্রের আওতায় বৈদ্যুতিক লাইনের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হচ্ছে।কিন্তু আমরা দ্রূতগতিতে বৈদ্যুতিক লাইন মেরামত করে নিরবিচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহ নিশ্চিত করছি।