ডুমুরিয়ায় রাস্তার কাজে অনিয়মের অভিযোগ

জাহাঙ্গীর আলম (মুকুল), ডুমুরিয়া (খুলনা) প্রতিনিধিঃ ডুমুরিয়া উপজেলার ভান্ডারপাড়া ইউনিয়নে এক ইউপি সদস্য’র বিরুদ্ধে রাস্তার কাজে অনিয়ম ও অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনার প্রতিকারে স্থানীয়রা উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নিকট লিখিত ভাবে অভিযোগ করেছেন।

অভিযোগ সুত্রে জানা গেছে, উপজেলার ভান্ডারপাড়া ইউনিয়নের জাবড়া এলাকায় ১১’শ ফুট দীর্ঘ একটি পুরাতন ইটের রাস্তা চলাচলের অযোগ্য হওয়ায় রাস্তাটি পুনঃ মেরামতের লক্ষ্যে বরাদ্দ হয়। যা বাস্তবায়নে ইউনিয়ন পরিষদ হতে এক লক্ষ টাকা বরাদ্দ হয় এবং প্রকল্প প্রধান হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন ৪,৫ ও ৬নং ওয়ার্ড সদস্য স্বপ্না রানী গাইন। কিন্তু তিনি ওই রাস্তার পুরাতন ইট উঠিয়ে নুতন করে মাত্র ৩’শ ফুট রাস্তা নির্মাণ করেছেন। রাস্তার বাকী অংশটুকু আর নুতন ভাবে নির্মাণ না করেই ফেলে রেখেছেন। এছাড়া তার বিরুদ্ধে উঠেছে অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ। তিনি ওই রাস্তা নির্মাণের সময় ৫০ হাজার টাকা বরাদ্দ এসেছে এমন কথা বলে স্থানীয়দের নিকট থেকে সহযোগীতা চেয়ে টাকাও নিয়েছেন।

এ সময় অনেকেই টাকা না দেওয়ায় তাদের সাথে খারাপ আচারণও করেন তিনি। এ বিষয়ে শিক্ষক পংকোজ কুমার রায় বলেন, রাস্তাটি পুরাতন হওয়ায় যাতায়াতের জন্য আমাদের অসুবিধা হচ্ছিল। মেম্বার স্বপ্না গাইন ওই রাস্তা নুতন ভাবে নির্মাণের লক্ষ্যে এক লক্ষ টাকার একটি বরাদ্দ পান। কিন্তু তিনি সেখানে মিন্মমানের ইট দিয়ে মাত্র ৩’শ ফুট রাস্তার কাজ করেছেন। এছাড়া রাস্তা করার সময় আমাদের কাছে টাকা চেয়েছিল। কিন্তু আমরা কেউ কেউ টাকা না দেওয়ায় তার লোকজনরা অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করছে। রাতের অন্ধকারে রাস্তার পুরাতন ইটগুলোও নিয়ে গেছে তার লোকজন। এ বিষয়ে ইউপি চেয়ারম্যান ডাঃ হিমাংশু বিশ্বাস বলেন, ওই রাস্তায় এক লাখ টাকা দেওয়া হয়েছিল। আগামীতে আরও বরাদ্দ দেওয়া হবে। তবে কাজ নিয়ে স্থানীয় ভাবে ঝমেলার কথা শুনেছি। আমি পরিদর্শন শেষে ব্যবস্থা নিবো।

ডুমুরিয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ আবদুল ওয়াদুদ জানান, এ ধরনের অভিযোগ হয়তঃ আমি যোগদানের পূর্বে করা হয়েছে। বিষয়টি সম্পর্কে আমি অবগত নই। তারপরও খোঁজ নিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করব।