ডুমুরিয়ার চুকনগরে ক্লিনিক কর্তৃপক্ষের অবহেলায় নব জাতকের মৃত্যুর ঘটনায় কবর থেকে লাশ উত্তোলন

জাহাঙ্গীর আলম (মুকুল), ডুমুরিয়া খুলনা প্রতিনিধি: খুলনা ডুমুরিয়া উপজেলার চুকনগর হালিমা মেমোরিয়াল নার্সিং হোম এন্ড ডায়াগোনিষ্ট সেন্টারে ডাক্তারের অবহেলায় নব জাতকের মৃত্যুর ঘটনায় আদালতের নির্দেশে লাশ কবর থেকে তুলে সুরতহাল রিপোর্ট তৈরী পূর্বক ময়না তদন্তের জন্য যশোর ২৫০ শয্যা হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

বুধবার বেলা ১১টায় যশোর জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রট মোঃ মাহমুদুল হাসানের উপস্থিতিতে কেশবপুর উপজেলার চুয়াডাঙ্গায় গ্রামের পারিবারিক কবর স্থান থেকে নবজাতকের লাশ উত্তোলন করা হয়। সংশ্লিষ্ট সুত্র জানা যায় খুলনার ডুমুরিয়া উপজেলার চুকনগর বাজারের হালিমা মেমোরিয়াল নার্সিং হোম এন্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টারে গত ২৯ সেপ্টম্বর যশোর জেলার কেশবপুর উপজেলার চুয়াডাঙ্গায় গ্রামের হেলাল উদ্দিন গাজীর সন্তান সম্ভাবা স্ত্রী ইয়াসমিন খাতুন (২০) কে সিজারিয়ান অপারেশন করে ক্লিনিক কর্তৃপক্ষ।

কিন্তু চিকিৎসকের ভুল চিকিৎসা ও দায়ীত্বহীনতায় নবজাতকের মৃত্য হয়। এঘটনায় নবজাতকের পিতা হেলাল উদ্দিন গাজী বাদী হয়ে গত ৫ অক্টোবর ক্লিনিক মালিক কথিত ডাক্তার কামাল হোসেনকে প্রাধান আসামী সহ ৩ জনের নাম উল্লেখ এবং অজ্ঞাত নামা আরো ২/৩ জনকে আসামী করে ডুমুরিয়া থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

অভিযোগ রয়েছে ক্লিনিক মালিক কামাল হোসেন মামলার বাদীকে ম্যানেজ করে তাকে দিয়ে গত ১৫ অক্টোবর আদালতে মামলা পরিচালনা করতে অপারগতাসহ বিভিন্ন কারণ দেখিয়ে নোটারী পাবলিক, খুলনা কার্যালয় হতে একটি এফিডেভিট সম্পাদন করে আদালতে জমা দেন। গত ৩ নভেম্বর মামলার ধার্য্য তারিখে বিজ্ঞ সিনিয়ার জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত ডুমুরিয়া,

খুলনার বিজ্ঞ বিচারক বাদীর আবেদন নামঞ্জুর করেন এবং নব জাতকের লাশ কবর থেকে তুলে ময়না তদন্তের জন্যে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ডুমুরিয়া থানা পুলিশের এস,আই হামিদুল ইসলাম,যশোর জেলা প্রশাসক ও যশোর সিভিল সার্জনকে নির্দেশ দেন। বুধবার সকালে যশোর জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট, সিভিল সার্জনের প্রতিনিধি মামলার বাদী হেলাল উদ্দিন গাজী,

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তাসহ সংশ্লিষ্ট সকলের এবং কেশবপুর থানা পুলিশ ও এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গের উপস্হিতিতে নব জাতকের লাশ কবর থেকে উত্তোলন করে লাশের সুরোত হাল রিপোর্ট তৈরী করে ময়না তদন্তের জন্য যশোর ২৫০ শয্যা হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে।