টাঙ্গাইলে জাল টাকা তৈরির সরঞ্জাম ও জাল টাকা সহ গ্রেপ্তার ৩জন

মোঃ রাশেদ খান মেনন (রাসেল), টাঙ্গাইল জেলা প্রতিনিধিঃ টাঙ্গাইলে জেলা পুলিশ (ডিবি উত্তর) এর বিশেষ অভিযানে জাল টাকা তৈরির সরঞ্জাম ও জাল টাকা’সহ ৩জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। গ্রেপ্তারকৃতরা হচ্ছেন বাসাইল উপজেলার কাশিল বটতলা গ্রামের রবি মিয়ার ছেলে আকাশ মাহমুদ হারেজ (৩০), কাশিল পশ্চিমপাড়া গ্রামের মৃত আজমত খানের ছেলে আয়নাল খান (৩৫) ও নাকাছিম গ্রামের বানিজ মিয়ার ছেলে রায়হান মিয়া (২০)।

টাঙ্গাইল পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে সম্মেলনকক্ষে ২৩ জুলাই বৃহস্পতিবার প্রেস ব্রিফিংয়ে এ তথ্য জানান পুলিশ সুপার সঞ্জিত কুমার রায় (বিপিএম)ঘটনার সাথে জড়িত অন্যান্যদের গ্রেপ্তারের বিষয়ে পুলিশের বিশেষ অভিযান অব্যাহত রয়েছে । তিনি বলেন, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে টাঙ্গাইলে জেলা পুলিশ (ডিবি উত্তর) এর অফিসার ইনচার্জ মোঃ সাজ্জাদ হোসেন এর নেতৃত্বে তার সহযোগী একটি বিশেষ টিম ২১ জুলাই রাত ৯.৩৫ মিনিটে বিশেষ অভিযানে জাল টাকা তৈরির সরঞ্জাম ও জাল টাকা’সহ ৩ জন আসামীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

অভিযান পরিচালনাকালে টাঙ্গাইল সদর থানাধীন করটিয়া পূর্বপাড়া সাকিনস্থ জনৈক সোনা মিয়া ওরফে সুইনা এর দোতলা বিল্ডিং বাসার পূর্ব পাশের ফ্লাটে দক্ষিণ পাশের রুমের ভাড়াটিয়া ধৃত আসামি আকাশ মাহমুদের শয়ন কক্ষের রুমের ভিতর হতে ২লক্ষ ৭৭ হাজার ৫০০ জাল টাকা উদ্ধার করা হয়। সেইসাথে একটি কালো রঙের নন-ব্র্যান্ডের সচল ডিলাক্স সিপিইউ, একটি কালো রঙ্গের ৩২ ইঞ্চি স্যামসাং মনিটর, একটি কালো রঙের এচটিসি কিবোর্ড, একটি কালো রঙ্গের ইস্পন প্রিন্টার মডেল নং এল ৩১১০, একটি কালো রংয়ের মাউস, চারটি ইস্পন কালি,

একটি সাদা নীল রঙের মারফি ইস্ত্রি মেশিন, একটি হলুদ রঙের পেপার কাটার, একটি ছোট কেচি, একটি সাদা স্টিলের স্কেল, একটি সাদা স্টীলের ছোট পাতিল, একটি কাঠযুক্ত ব্রাশ, জাল টাকার নোট শক্ত করার সাদা সাগু ১০০ গ্রাম উদ্ধার করা হয়। পুলিশ জানায়, জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেপ্তারকৃতরা জানিয়েছেন, কোরবানীর পশুর হাটে চালানোর জন্য তারা জাল টাকার নোট তৈরি করছিল। উদ্ধারকৃত ২লক্ষ ৭৭ হাজার ৫০০ জাল টাকার সবগুলোই ছিল ৫০০ টাকার নোট।

আসামিদের বিরুদ্ধে এসআই নুরুজ্জামান বাদী হয়ে সদর থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। পুলিশ সুপার সঞ্জিত কুমার রায় (বিপিএম) বলেন, ঘটনার সাথে জড়িত অন্যান্যদের গ্রেপ্তারের বিষয়ে বিশেষ পুলিশি অভিযান অব্যাহত রয়েছে।