টাঙ্গাইলের বাসাইলে বন্যার পানির স্রোতে ঝিনাই নদীর সেতু ভেঙে যাতায়াত বিচ্ছিন্ন

মোঃ রাশেদ খান মেনন (রাসেল), টাঙ্গাইল জেলা প্রতিনিধিঃ টাঙ্গাইলের বাসাইলে বন্যার পানির স্রোতে ঝিনাই নদীর দাপনাজোর এলাকায় সেতু ভেঙে যাতায়াত বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। এতে প্রায় বিশটি গ্রামের মানুষ চরম দুর্ভোগে পড়েছেন। গতকাল দুপুরে উপজেলার কাশিল ইউনিয়নের দাপনাজোর এলাকায় ঝিনাই নদীর ওপর নির্মিত সেতুটির পূর্বাংশের একটি পিলার ও দুটি স্ল্যাব ভেঙে যায়।

এ ঘটনায় কেউ হতাহত হয়নি। স্থানীয়রা জানান বাসাইল উপজেলার আইসড়া, একঢালা, দোহার, দাপনাজোর, দেউলী, জশিহাটী, হাকিমপুর, মোড়াকৈ, ময়থা, ফুলকী, জশিহাটীসহ প্রায় ১৫-২০টি গ্রামের মানুষের স্থানীয় বাণিজ্যিক কেন্দ্র করটিয়া, সরকারি সা’দত বিশ্ববিদ্যালয় ও টাঙ্গাইল সদরের সঙ্গে সেতুটি যোগাযোগের একমাত্র মাধ্যম। সেতুটি ভেঙে যাওয়ায় তাদের এখন চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। স্থানীয় ভুক্তভোগীরা বলেন, সেতুটি আমাদের সামনেই ভেঙে পড়েছে। অল্পের জন্য একটি মোটরসাইকেল চালক রক্ষা পেয়েছেন। সেতুটি ভেঙে যাওয়ায় এখন মানুষের চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে।

স্থানীয় ইউপি সদস্য মহসিনুজ্জামান বলেন, ‘ঝিনাই নদীতে বন্যার পানির ভীষণ স্রোত। এ কারণে সেতুটির পিলারের নিচের মাটি সরে গিয়ে দুটি স্ল্যাব ও একটি পিলার ভেঙে পড়েছে। ফলে ১৫-২০টি গ্রামের মানুষের যাতায়াত বন্ধ হয়ে গেছে। চরম দুর্ভোগে পড়েছেন এ এলাকার মানুষ। মানুষের পারাপারের জন্য অস্থায়ীভাবে নৌকার ব্যবস্থা করার জন্য সংশ্লিষ্টদের কাছে দাবি জানাচ্ছি। এছাড়াও দ্রুত পুনরায় এখানে সেতু নির্মাণের দাবি করছি।’ বাসাইল উপজেলা এলজিইডির প্রকৌশলী রোজদিদ আহমেদ বলেন, ‘২০১৯ সালে সেতুটি ঝুঁকিপূর্ণ ঘোষণা করা হয়।

বর্ষার পানির স্রোতে ১২০ মিটার সেতুটির ৩০ মিটার স্ল্যাব ও একটি পিলার ভেঙে পড়েছে। এটি ১৯৯৮ সালে নির্মাণ করা হয়।’ তিনি আরও জানান, নতুন করে সেখানে ২৮২ মিটারের একটি সেতু নির্মাণের জন্য ঠিকাদার নির্বাচন করা হয়েছে। বর্ষার পানি চলে গেলেই নির্মাণ কাজ শুরু করা হবে। মেনন