টঙ্গীবাজারে ২য় দিনের মত চলছে ফুটপাতের অবৈধ স্থাপনা অপসারণের অভিযান

মোঃ আল-আমিন,  টঙ্গী (গাজীপুর) প্রতিনিধি: টঙ্গীবাজারে অবৈধভাবে ফুটপাতে গড়ে ওঠা দোকানপাট উচ্ছেদ অভিযান দ্বিতীয় দিনের মত আজও চালাচ্ছে গাজীপুর মেট্রোপলিন পুলিশ। স্বাধীনতার পর এই প্রথম টঙ্গী বাজারে উচ্ছেদে নামে পুলিশ।

গাজীপুর মহানগরের টঙ্গী বাজারের ভেতর বাহিরে সবকয়টি চলাচলের সড়ক দখল করে ব্যবসা করে আসছিল স্থানীয়রা। বুধবার সকাল থেকে গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ উচ্ছেদ অভিযান শুরু করে। জেলা প্রশাসক ও সেনাবাহিনীর সহায়তায় চলমান চলছে এ অভিযান। ইতিমেধ্যে বাজার এলাকার প্রায় ৫শ স্থাপনা গুড়িয়ে দেয়া হয়। এর আগে ১২শ অবৈধদোকার ঘর গুড়িয়ে দেওয়া হয়েছে।

রাস্থা দখল করে ব্যাবসা করা দোকানিরা জানান, তারা দিন ও মাস প্রতি নির্দিষ্ট হারে চাঁদা দিয়ে এসব দোকান পরিচালনা করতো।শূধু উচ্ছেদ নয়, পাশাপাশি তাদের জন্য নির্দিষ্ট বাজার করে দেয়ার ও আহবান জানান তারা।

এদিকে টঙ্গী বাজার বনিক কমিটির সাধারন সম্পাদক মোঃ নাসির উদ্দিন জানান, ক্ষুদ্রো ব্যবসায়ী ও হকারদের জন্য পুলিশের সাথে আলোচনা করে নির্দিষ্ট যায়গা ঠিক করে দেয়ার কথা বলবো।

এদিকে টঙ্গী পূর্ব থানার ওসি আমিনুল ইসলাম জানান,টঙ্গী পূর্ব থানা এলাকায় অবৈধভাবে রাস্থা দখল করে ভবিষ্যতে আর কাইকে ব্যবসা করতে দেয়া হবে না।কোন প্রভাবশালী মহলকে সরকারি রাস্থাকে বানিজ্যের কেন্দ্র হতে দেবো না। সরকারের নির্দেশনা মোতাবেক স্বাস্থ্য বিধি না মানলে দোকান বন্ধ করে দেওয়ার ও কথা বলেন পুলিশের এ কর্মকর্তা।

উচ্ছেদের বিষয় তিনি বলেন, গাজীপুর মহানগরের টঙ্গী বাজারের বিভিন্ন মার্কেটর সামনে এবং দোকানের সামনে রাস্তার উপরে, দোকানপাট, দোকানের মালামাল দিয়ে রাস্তাগুলো দখল করে ব্যবসা করে আসছে। তাছাড়া, থানা থেকে একাধিক নোটিশের পরও যেসব স্থাপনা সরানো হয়নি সেগুলো উচ্ছেদ করতে এই অভিযান চলছে। অবৈধস্থাপনা যারই হোক না কেন তা উচ্ছেদ করা হবে।

এদিকে, গাজীপুর মহানগরের বেশ কয়েকটি বাজার দখলমুক্ত করতে জিএমপি পুলিশ কাজ করে যাচ্ছে। বিশেষ করে কাঁচাবাজার মার্কেট, টিনসেড ঔষধ মার্কেটসহ বেশ কিছু স্থাপনাও পর্যায়ক্রমে উচ্ছেদ করা হবে। সকল অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ না হওয়া পর্যন্ত এই অভিযান চলবে বলেও জানান জিএমপির পুলিশ।