টঙ্গীতে শীর্ষ দুই ডাকাত পুলিশের জালে

মোঃ আল-আমিন, টঙ্গী (গাজীপুর) প্রতিনিধিঃ গাজীপুরের টঙ্গীতে ফালান ও মনির নামের টঙ্গীর দুই শীর্ষ ডাকাতকে গ্রেফতার করেছে টঙ্গী পূর্ব থানা পুলিশ। গতকাল তাদের দুজনকে ঢাকা ও টঙ্গী থেকে পৃথক অভিযানে গ্রেফতার করা হয়। পুলিশ জানায়, গাজীপুর পরিবহনের একটি বাসে টঙ্গীর বাঁশপট্টি এলাকায় কিছুদিন আগে একটি ডাকাতির ঘটনা ঘটে। এরপর ঘটনা উধঘাটন ও ক্লুলেশ সেই মামলার আসামি ধরতে কোমর বেঁধে মাঠে নামে পুলিশ। মামলার দায়ীত্ব এসে পড়ে টঙ্গী পূর্ব থানার চৌকস পুলিশ অফিসার এস আই শাহীনমোল্লার ঘাঁরে।ক্লুলেস মামলার আসামি ধরতে নান ধরনের কৌশল অবলম্বন করেন পুলিশের এই কর্মকর্তা।কাকাতির স্বীকার হওয়া ব্যক্তিদের ভাষ্য,স্থান,সময় মিলিয়ে নানা স্থানে হন্যে হয়ে খুঁজতে থাকে আসল রহস্য।এরই একপর্যায়ে কৌশলে রাজধানীর দক্ষিণ কাঁন থেকে গ্রেফতার করা হয় মনির নামের এক সন্দেহভাজনকে।ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদে সে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য দেয়।তার দেয়া তথ্যমতে টঙ্গী থেকে গ্রেফতার করা হয় আসাদ নামের আরেক সন্দেভাজনকে। এরপর তাদের দেয়া তথ্যমতে রাসেল নামের আরেক সন্দেভাজনকে তার ঘরে তল্লাশি চালিয়ে তার দেয়া তথ্য মতে ঘরের এক কোন থেকে উদ্ধার করা হয় ডাকাতি কাজে ব্যবহৃত দুটি সুইচ গিযার ছুরি ও দুটি চাপাতি। মামলা তদন্তকারী অফিসার এসআই শাহিন মোল্লা জানান,শীর্ষ দুই ডাকাত ফালান ও মনিরের নামে খুন,ডাকাতিসহ একাধিক মামলা রয়েছে।পেশাদার ডাকাত হওয়ায় এদের গ্রেফতার করতে অনেক বেগ পেতে হয়েছে।তবে কৌশলে বিভিন্ন জায়গায় অবিযান চালিয়ে এদের গ্রেফতার করি। টঙ্গী থানার অফিসার ইনচার্জ আমিনুল ইসলাম জানান,আভিযুক্ত ডাকাতরা মূলত বোর্ড বাজার ,গাজীপুরা,এরশাদনগর ও কলেজগেট এলাকায় ডাকাতি সংঘঠন করে জনজীবনকে অতিষ্ঠিত করে তোলে।এরই প্রেক্ষিতে ডাকাত দলটিকে ধরতে নানা কৌশল অবলম্বন করে তাদের গ্রেপতার করতে সক্ষম হই।তাদের বীরুদ্ধে মামলা টঙ্গী পূর্ব থানায় ৪১(৩)২০২০ ধারা- ৩৯৫/৩৯৭ পেনাল কোড এর ঘটনার সাথে জড়িত ও নেতৃত্ব প্রদানকারী দুই শীর্ষ ডাকাত ফালান ও মনির মনিরদের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। আদালতে প্রত্যেকেই ১৬৪ ধারায় ডাকাতি সংগঠনের বিষয় দাদের সংশ্লিষ্টতা অকপটে স্বীকার করেছে।