টঙ্গীতে বলৎকারে এক কিশোরের মৃত্যু হয়েছে

মোঃ আল-আমিন টঙ্গী(গাজীপুর) প্রতিনিধিঃ গাজীপুরের টঙ্গীতে বলাৎকারে ১৫ বছর বয়সের এক কিশোরের মৃত্যুর অভিযোগ পাওয়া গেছে। বৃহস্পতিবার রাতে বিশ্ব ইজতেমা ময়দানে এ ঘটনা ঘটে। নিহতের নাম আল-আমিন।

সে টঙ্গীর এরশাদ নগর এলাকার ৬ নং ব্লকের বাসিন্দা বিল্লাল হোসেনের ছেলে। এ ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে পুলিশ মাহিন ও হৃদয়কে গ্রেফতার করেছে। পুলিশ জানায়, নিহত আল-আমিন তৃতীয় শ্রেণি পর্যন্ত লেখাপড়া করেছে।

পরিবারের অভাব মেটাতে কয়েক বছর ধরে একটি লোহার দোকানে কাজ করে আসছিল। বৃহস্পতিবার রাতে ইসলামিক আলোচনা শুনতে একই এলাকার চার বন্ধু মিলে আল-আমিনকে বাসা থেকে ডেকে ইজতেমা ময়দানের টিনসেড মসজিদে নিয়ে যায়।

পরে তাকে রুটি খেতে দেয় তারা। রুটি খাওয়ার এক পর্যায়ে জ্ঞান হারায় আল-আমিন। পরদিন সকালে জ্ঞান ফিরলে বাড়ি ফিরে এসে কাউকে কিছুই জানায়নি। ঘটনার একদিন পর শনিবার নির্যাতিত কিশোর অসুস্থ হয়ে তাকে তাৎক্ষণিক টঙ্গী হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।

শিশুটির মলদ্বারে গুরুতর জখম রয়েছে বলে চিকিৎসকরা তার অভিভাবকদের জানান। অবস্থার অবনতি হলে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকার কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয় তাকে। সেখানে চিকিৎসা নিয়ে কিছুটা সুস্থ হয়ে বাড়িতে ফিরলে বৃহস্পতিবার রাতে শিশুটির মৃত্যু হয়।

পরে লাশ ময়নাতদন্তের জন্য গাজীপুর মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় নিহতের মা আমেনা একই এলাকার মান্নান সরদারের ছেলে মাহিন (১৫), ইউসুফের ছেলে হৃদয় (১২), ফজর আলীর ছেলে কায়সার (১৫) ও জয়নালের ছেলে সাইফুলের (১৪) বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন।

যোগাযোগ করা হলে টঙ্গী পশ্চিম থানা পুলিশের পরিদর্শক এমদাদুল হক ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন।