জয়পুরহাট জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসারের বিরুদ্ধে নানা অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগ

ওমর আলী বাবু , জয়পুরহাট প্রতিনিধি: জয়পুরহাট জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার এস.এম তৌফিকুজ্জামান এর বিরুদ্ধে নানা অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগ উঠেছে। ব্যক্তিগত কাজে গাড়ী ব্যবহার, ৯ মাস ১১ দিন অফিস করেও নিয়মিত তেল এবং টিএ ,ডিএর বিল উত্তোলন করেন তিনি।

জয়পুরহাট জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার অফিসের কাজে গাড়ী ব্যবহার করার কথা বললেও অফিসের কোন কর্মকর্তা গাড়ী ব্যবহার করেন নি বলে নিশ্চিত করেন সহকারী জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার আশরাফুল কবির। অফিস সূত্রে জানা যায় গত জানুয়ারি মাসে চিকিৎসার জন্য ৪৫ দিনের ছুটি নেন তৌফিকুজ্জামান।

তারপরে ছুটি শেষ হলেও অফিস না করে রাজশাহী বসে অফিস সহকারীদের ডেকে অফিসের সকল কাগজে সই করে বিল উত্তোলন করেন তিনি তার বিরুদ্ধে আরো অভিযোগ হলো শিক্ষকদের মামলা পরিচালনার জন্য ৩০ হাজার টাকা যা তিনি ব্যয় করেননি,অফিস মেরামত বাবদ ৫০ হাজার টাকা যা তিনি খরচ করেননি,

একীভূত শিক্ষার জন্য বরাদ্দ ১ লক্ষ টাকার কোন খরচ করা হয়নি , অফিসের কম্পিউটার মেরামতের ২০ হাজার টাকা যা ব্যয় করা হয়নি এবং বঙ্গবন্ধু-বঙ্গমাতা ফুটবল টুর্ণামেন্ট ও আন্তঃপ্রাথমিক ক্রীড়া প্রতিযোগীদের পরিবহন ব্যয় দেয়া হয়নি এছাড়াও নি¤œমানের পুরস্কার দিয়ে ৪০ হাজার টাকার ভূয়া বিল করা হয়েছে।

এ বিষয়ে রাজশাহী বিভাগীয় উপ-পরিচালক আবুল কালাম আজাদের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন আমাকে মন্ত্রণালয় থেকে তদন্তের দায়িত্ব দেয়া হয়েছিল আমি মন্ত্রণালয়ের তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিয়েছি এ ব্যাপারে কিছু বলতে পারবনা।

প্রাথমীক শিক্ষা অধিদপ্তরের যুগ্ন সচিব মিজানুর রহমানের সাথে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার অসুস্থ, তিনি ছুটি নিয়ে উন্নত চিকিৎসার জন্য দেশের বাইরে গিয়েছিলেন তার বিষয়ে আমার মন্ত্রণালয়ে অবহিত করেছি ।

অভিযোগের বিষয়ে জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা এসএম তৌফিকুজ্জামান এর সাথে যোগাযোগ করলে তিনি এ বিষয়ে কোনো কথা বলতে রাজি হননি। উল্লেখ্য তিনি এর আগে দিনাজপুর জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা হিসেবে কর্মরত ছিলেন সেখানেও তার বিরুদ্ধে কোটি টাকার দুর্নীতির অভিযোগ উঠেছিল।