জোর করে খালেদা জিয়ার জামিন নেয়া যাবে না : নাসিম

আওয়ামী লীগের সভাপতিমন্ডলীর সদস্য এবং কেন্দ্রিয় ১৪ দলের মুখাপাত্র মোহাম্মদ নাসিম বিএনপি নেতাদের উদ্দেশ্য করে বলেছেন, জোর করে আদালত থেকে বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার জামিন নেয়া যাবে না।
আজ বৃহস্পতিবার জাতীয় প্রেসক্লাবের আব্দুস সালাম হলে হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দীর মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট এই আলোচনা সভার আয়োজন করে।
মোহাম্মদ নাসিম বলেন, ‘জোর করে খালেদা জিয়ার জামিন নেয়া যাবে না। দেশকে অস্থিতিশীল করে নয়, বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে বিএনপিকে আইনি প্রক্রিয়ায় যেতে হবে। কোর্টের সুষ্ঠু পরিবেশ নষ্ট করে মুখে চকলেট চাবিয়ে বেগম জিয়ার মুক্তি হবে না।’
তিনি বলেন, আজকে খালেদা জিয়ার জামিনের জন্য কোর্টকে জিম্মি করে বিএনপি। এই কাজ আমরা কোনোদিন করিনি। আমরা আইনি লড়াই করে মুক্ত হয়েছি। চকলেট মুখে দিয়ে আইনজীবীরা সুপ্রিম কোর্টে বসে আছে। কেউ কোনোদিন বলতে পারবে যে, জোর করে জামিন নেওয়া যায়?
আওয়ামী লীগের সভাপতিমন্ডলীর সদস্য বলেন, আজকে বিএনপি মনে করেছে, কোর্টের সুষ্ঠু পরিবেশ নষ্ট করে, সুপ্রিম কোর্টে অবস্থান ধর্মঘট করে, চকলেট মুখে দিয়ে খালেদা জিয়াকে মুক্ত করবে। তারা আইনজীবী হিসেবে আন্দোলন করতে পারে নাই। এই ব্যর্থতার জন্য ওদের লজ্জা পাওয়া উচিত।
কমিশন গঠন করে ১৫ আগস্ট ও ৩ নভেম্বর জেল হত্যার দায়ে জিয়াউর রহমানের বিচার দাবি করে নাসিম বলেন, কমিশন করে খলনায়কের চরিত্র উন্মোচন করতে হবে। না-হলে কেউ বুঝতে পারবে না কীভাবে জিয়াউর রহমান পরিকল্পনা করে, রাজনীতি শূণ্য করার জন্য ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধুকে স্বপরিবারে এবং জেলখানায় চার নেতাকে হত্যা করেছে। কমিশন গঠন করে এইটা বের করতে হবে। জিয়াউর রহমানের খুনির দল হলো আজকে খালেদা জিয়ার দল।
তথ্য প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসান বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান জীবন দিয়ে বাংলার মানুষকে স্বাধীনতা দিয়ে গেছেন। তাই চক্রন্তকারিদের সকল চক্রান্ত মোকাবেলা করে বাংলাদেশকে তাঁর স্বপ্নের বাংলা হিসাবে গড়ে তুলতে হবে।
সোহরাওয়ার্দীর স্মৃতি চারণ করে তিনি বলেন, শহীদ সোহরাওয়ার্দী গণতন্ত্রের জন্য আজীবন সংগ্রাম করে গেছেন। গণতন্ত্র, ন্যায় বিচার ও আইন প্রতিষ্ঠার সংগ্রামে তিনি অসাধারণ অবদান রেখেছেন। গণতন্ত্রের জন্য তার যে সংগ্রাম সেটি এখনো আওয়ামী লীগ অনুসরণ করে যাচ্ছে।
সংগঠনের উপদেষ্টা সৈয়দ হাসান ইমামের সভাপতিত্বে আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য মোজাফফর হোসেন পল্টু, সাবেক খাদ্যমন্ত্রী এডভোকেট কামরুল ইসলাম এমপি, সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী এডভোকেট শামসুল হক টুকু, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ, স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের কন্ঠশিল্পী রফিকুল আলম, বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের সাধারণ সম্পাদক অরুণ সরকার রানা প্রমুখ বক্তব্য রাখেন। (সুত্র:বাসস)