জোয়ারে চাঁদপুর শহরে নিম্নাঞ্চল প্লাবিত / শহর এলাকায় পানিবদ্ধতা

মোহাম্মদ বিপ্লব সরকার, চাঁদপুর প্রতিনিধি: উজানের ঢল ও ভাদ্র মাসের ভরা অমাবস্যার প্রভাবে চাঁদপুরের নদ নদীর পানি অস্বাভাবিক ভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে।

যার ফলে জোয়ারে পানিতে চাঁদপুর শহরের নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে। আবারো দেখা দিয়েছে জলাবদ্ধতা। শহরের বেশ কটি সড়কে জলাবদ্ধতায় বুধবার ও বৃহস্পতিবার সকালে যান চলাচলে বিঘ্ন ঘটে। শহরবাসীকে দুর্গন্ধময়, ময়লাযুক্ত পানি ডিঙিয়ে কর্মস্থলে যেতে হয়।

পদ্মা-মেঘনার পানি এখনো বিপদসীমার ২৫সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। পানি উন্নয়ন বোর্ড চাঁদপুরের নির্বাহী প্রকৌশলী বাবুল আকতার জানান, অমাবস্যার প্রভাব ধীরে ধীরে কেটে যাবে। তাছাড়া চাঁদপুর শহরের ড্রেনেজ  খারাপ হওয়ায় শহরে জলাবদাধতার সসৃস্টি হহচ্ছে।

তবে পদ্মা-মেঘনার পানি বুধবার সন্ধ্যা সোয়া ৬ টায় বিপদসীমার ৬৩ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হয় । তিনি বলেন জোয়ারে পানি উঠলেও ভাটায তা নেমে যায়। সূত্র জানায়, অপরিকল্পিতভাবে খাল, ডোবা, নালা ভরাটসহ ড্রেনেজ সমস্যার কারণে অনেক সময় বৃষ্টির পানি আটকে থাকে।

ফলে অল্প বৃষ্টিতেই পানিবদ্ধতা দেখা দেয়। এদিকে পদ্মা ও মেঘনা নদীর তীরবর্তী চাঁদপুর জেলার চারটি উপজেলায় এখনো পানিবদ্ধতার উন্নতি ঘটেনি। ক্ষতিগ্রস্ত ১৮ টি ইউনিয়নের লোকজন দুর্ভোগ কাটিয়ে উঠতে না উঠতেই আবারো অমাবস্যার প্রভাবে পড়েছে।