জামালপুরে এক সাংবাদিক ও তিন স্বাস্থ্যকর্মীসহ ১৪ জনের করোনা শনাক্ত, আক্রান্ত ৫২৫

মো: শামীম হোসেন, জামালপুর জেলা প্রতিনিধি: গত ২৪ঘন্টায় নতুন করে প্রানঘাতী করোনা ভাইরাসে এক সাংবাদিক তিন স্বাস্থ্যকর্মী ও এক পুলিশসহ ১৪ জনের নমুনা পরীক্ষায় সংক্রামণ শনাক্ত হয়েছে। বৃহস্পতিবার রাতে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ ল্যাবে ১৩৬টি নমুনা ও জামালপুর শেখ হাসিনা মেডিকেল কলেজের ল্যাবে ৫৪ নমুনা পরীক্ষার রিপোর্টে ১৪জনের করোনা পজিটিভ ধরা পরে।

বৃহস্পতিবার(২৫জুন) ওই ব্যক্তিদের দেহে করোনা পজেটিভ শনাক্ত নিশ্চিত করেছেন জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ। জেলায় নতুন করে আক্রান্ত হয়েছে জামালপুর সদরে ১২, ইসলামপুরে ১,সরিষাবাড়ীতে ১ জন । জামালপুর সিভিল সার্জন ডাঃ প্রনয় কান্তি দাস জানান, ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ ল্যাবে ১৩৬টি নমুনায় ৫জন শনাক্ত এবং জামালপুর শেখ হাসিনা মেডিকেল কলেজের ল্যাবে ৫৪টি নমুনা পরীক্ষায় ৯জন করোনা শনাক্ত হয়।

ওই ব্যক্তিরা জামালপুর জেনারেল হাসপাতাল সহ নিজ নিজ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নমুনা দিয়েছিল। জেলায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়ালো ৫২৫ জন। আক্রান্ত ব্যক্তিদের মধ্য জামালপুর শহরের ৫৩ বছর বয়সী এক সাংবাদিক ও সমাজসেবক, জামালপুর জেনারেল হাসপাতালের ৩৮ বছরবয়সী এক স্বাস্থ্যকর্মী, শেখ হাসিনা মেডিকেল কলেজের আরটি পিসিআর ল্যাবের ৫৮ বছর বয়সী এক স্বাস্থ্যকর্মী , সদর উপজেলার ৪০ বছর বয়সী আরো এক স্বস্থ্যকর্মী তার বাসা শহরের কাচারীপাড়া,

জামালপুর কৃষি গবেষণা ইনিস্টিটিউটের চাকরীজীবি ২৬ বছর বয়সী এক নারী ও ৪২ বছর বয়সী এক পুরুষ ,শহরের তমাল তলা এলাকার ৪৫ বছর বয়সী ও ৫০ বছর বয়সী দুইব্যক্তি, পুলিশ সুপার কার্যালয়ের এক ২৮ বছর বয়সী পুলিশ সদস্য, পৌর এলাকার দেওয়ানপাড়ায় ৪৫ বছরবয়সী ও ৩৫ বছর বয়সী দুই ব্যক্তি, ব্যাংক কলোনী এলাকায় ৪০ বছর বয়সী এক বেসরকারী প্রতিষ্ঠানের চাকরী জীবি, ইসলামপুরে চর গোয়ালী ইউনিয়নের কান্দারচর গ্রামের ৪২ বছর বয়সী এক সমাজসেবক সহ করোনা ভাইরাসের উপসর্গ থাকায় তাদের নমুনা পরীক্ষায় পজেটিভ আসে।

জেলায় ২৭ চিকিৎসক, একজন পল্লী চিকিৎসক ও ৭৬ জন সরকারী স্বাস্থ্যকর্মী এবং ১১জন বেসরকারী স্বাস্থ্যকর্মী করোনায় আক্রান্ত হয়েছে। আক্রান্ত ৫০৩ জন, ৮জন করোনা আক্রান্তে মারা যায় । হোম আইসেলেশনে থাকা দুইজন চিকিৎসকসহ অন্য আরেক জন ঢাকায় এবং ৩ জনকে ময়মনসিংহে রেফার্ড করা হয়। এছাড়াও শেখ হাসিনা মেডিকেল কলেজের আইসোলেশন ইউনিট থেকে ছাড়প্রত্র নিয়ে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ২০৭ জন । জেলার সংক্রমণের উপজেলাগুলোতে সরিষাবাড়ীতে ৪৪, মেলান্দহে ৭৫, মাদারগঞ্জে ৩৮, বকশিগঞ্জে ৪৮, দেওয়ানগঞ্জে ৩৩, ইসলামপুরে ১০০, সদরে ১৮৭জন।