জমি নিয়ে পূর্ব শত্রুতার জেরে বসতবাড়ীর গোয়াল ঘর পুড়িয়ে দেয়ার অভিযোগ

আব্দুর রশীদ তারেক, নওগাঁ জেলা প্রতিনিধি:  নওগাঁর সদর উপজেলায় জমি নিয়ে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে আব্দুস ছাত্তার নামে এক ব্যক্তির বসতঘরের পাশের গোয়াল ঘর আগুনে পুড়িয়ে দেয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। ৩ মে ২০২০ তারিখ দিবাগত রাত ১২টায় উপজেলার বক্তারপুর ইউনিয়নের মুরাদপুর গ্রামে অগ্নিকান্ডের এ ঘটনাটি ঘটেছে।

আগুনে তার বসতঘরের পাশের গোয়ালঘরসহ তিনটি গরু আগুনে পুড়ে যায়। এছাড়া ১৯ জুন ২০২০ তারিখে বিবাদমান ওই জমিতে আম পাড়তে গেলে বিভিন্নভাবে হুমকি প্রদান করা হয়। জানা গেছে, জমি নিয়ে আব্দুস সাত্তারের সাথে একই গ্রামের কয়েকজন ব্যাক্তির সাথে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলছে। এ নিয়ে উভয় পরিবারের একাধিক মামলাও আদালতে চলমান রয়েছে। এছাড়া ২৬ জানুয়ারী ২০২০ সালে আব্দুল জলিল, বুলু, দুলু, ফিরোজ রাজা, বাদশা নার্গিস মোছলিম এদের বিরুদ্ধে জমি জমা নিয়ে একটি মামলা দায়ের করেন প্রতিপক্ষ আব্দুস সাত্তার।

সেই মামলায় আব্দুল জলিলসহ আটজনকে আসামি করা হয়। এসব বিরোধের জের ধরে অগ্নিকান্ডের ঘটনাটি ঘটতে পারে বলে মনে করছেন এলাকাবাসীরা। আব্দুস সাত্তার জানান, আমার বসতবাড়ীর গোয়াল ঘরে আগুন দিয়ে আমিসহ আমার পরিবারকে মেরে ফেলার চেষ্টা করা হয়েছে। এতে আমার ১ লাখ ৫০ হাজার টাকার ক্ষতি হয়েছে। তিনি আরও বলেন, ঘটনার রাতে খাওয়া-দাওয়া করে স্ত্রী, সন্তানসহ ঘুমিয়ে পড়ি।

গভীর রাতে আমার স্ত্রী প্রকৃতির ডাকে সাড়া দিবার জন্য ঘুম থেকে ওঠে গোয়াল ঘরের ভেতরে আগুন দেখতে পায়। আগুন দেখে চিৎকার শুরু করলে এলাকার লোকজন এসে আগুন নিভিয়ে দেন। এ ব্যাপারে আমি গত ০৩/০৫/২০২০ তারিখে নওগাঁ সদর থানায় লিখিত অভিযোগ করার প্রেক্ষিতে থানা থেকে পুলিশ এসে তাদের একটি নোটিশ দিয়ে থানায় জমির কাগজপত্র নিয়ে হাজির হতে বলেন। করোনা ভাইরাস এর অবস্থার পরিবর্তন হলে থানায় বসার কথা আছে।

পূর্ব বিরোধের জের ধরে প্রতিপক্ষরা সপরিবারে আমাদের পুড়িয়ে মারার চেষ্টা করেছিল বলে দাবী করেন তিনি। তিনটি মামলায় আদালত থেকে ডিগ্রী পেয়ে গত ১৯ জুন ওই জমিতে আম পারতে গেলে বিভিন্নভাবে হুমকি ধামকি দেন। তারা আব্দুস ছাত্তারকে হুমকি দিয়ে আরও বলেন ডিগ্রীর কাগজ ধুয়ে পানি খাঁ আদালত তো জমিতে আসবেনা বা থানার পুলিশ ও জমিতে আসবেনা। এ ব্যাপারে ২০/০৬/২০২০ তারিখে নওগাঁ সদর থানায় একটি সাধারন ডায়রী করা হয়েছে। নওগাঁ সদর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সোহরাওয়ার্দি জানান, এ ব্যাপারে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হবে ।