শিশু জিম্মিকারী আসামি সুভাষের মৃত্যু ও গণপিটুনিতে স্ত্রীর মৃত্যু

ভারতের উত্তরপ্রদেশে জিম্মিকারীর মৃত্যুর মধ্যে দিয়ে শেষ হলো ১০ ঘণ্টার শ্বাসরূদ্ধকর অভিযান। শুক্রবার ভোরে উদ্ধার হয় ২৩ শিশু।

পুলিশ জানায়, প্রদেশের ফারুখাবাদ এলাকায় বৃহস্পতিবার থেকে চলছিলো জিম্মি নাটক। জামিনে ছাড়া পাওয়া হত্যাকাণ্ডের আসামি সুভাষ বাথাম নামের এক ব্যক্তি মেয়ের জন্মদিন উপলক্ষে ২১টি শিশুকে নিজ বাড়িতে দাওয়াত করে। এরপরই, জিম্মি করে নিজ স্ত্রী-সন্তানসহ বাকি শিশুদের। প্রতিবেশীদের অভিযোগের ভিত্তিতে কানপুর জোনের আইজি–র নেতৃত্বে কমান্ডো, জঙ্গিদমন স্কোয়াড ও পুলিশ বাড়ি ঘিরে ফেলে। একপর্যায়ে সুভাষ বাথাম গুলি ও বোমাও ছুঁড়ে।

১০ ঘণ্টার অপারেশনে মিলল সাফল্য।ভোর নাগাদ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর পাল্টা অভিযানে প্রাণ হারায় সুভাষ। পুলিশের দাবি, মানসিক অবসাদ থেকেই এ ঘটনার সূত্রপাত।

এদিকে, পুলিশের গুলিতে সুভাষ বাথামের মৃত্যু হলেও রোষ থামেনি এলাকার উত্তেজিত জনতার। ওই ঘটনার প্রতিক্রিয়ায় সুভাষ বাথামের স্ত্রীকেও গণপিটুনি দেয় স্থানীয় জনতা। এতে তার মৃত্যু হয়েছে বলে জানিয়েছে বিবিসি।