জগন্নাথপুরে মেয়েকে নির্যাতনের প্রতিবাদ করায় বাবাকে পিটিয়ে আহত, আটক ৪

মোঃ আলী হোসেন খাঁনঃ সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুরে মেয়েকে উত্যক্ত করা ও ঘর থেকে তুলে নিয়ে যাওয়ার প্রতিবাদ করায় মেয়ের বৃদ্ধ বাবা আনোয়ার আলী (৬৫) কে রড দিয়ে পিটিয়ে আহত করেছে সন্ত্রাসীরা। মঙ্গলবার ভোররাতে স্বামী পরিত্যক্তা মেয়ের বাবাকে উপজেলার পাইলগাঁও ইউনিয়নের আলীগঞ্জ বাজারের কলোনির ভাড়া বাসা থেকে ধরে নিয়ে গিয়ে রড দিয়ে পিটিয়ে আহত করে পার্শ্ববর্তী গুতগাঁও গ্রামের শামীম আহমদ ও তার লোকজন।

এ ঘটনায় সোমবার রাতেই অভিযান চালিয়ে আলীগঞ্জ বাজারের পাশ্ববর্তী গুতগাঁও গ্রাম থেকে ৪ জনকে আটক করেছে পুলিশ। আটককৃতরা হলো- লিটন মিয়া (২৫), আকাই মিয়া (২৮), ইলিয়াছ মিয়া (২৭) ও আলম মিয়া (৩০)। তবে পলাতক রয়েছে মূল অভিযুক্ত শামীম আহমদ।

মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৮ টায় হবিগঞ্জ জেলার নবীগঞ্জ এলাকা থেকে ওই মেয়েকে পুলিশ উদ্ধার করেছে বলে জানিয়েছেন, জগন্নাথপুর থানার ওসি (তদন্ত) মুসলেহ উদ্দিন আহমেদ।

স্থানীয় লোকজন ও নির্যাতিতা মেয়ের বাবা আনোয়ার আলী জানান, হবিগঞ্জ জেলার নবীগঞ্জ উপজেলার রাজনগর গ্রামে এক ব্যক্তির বাড়িতে গৃহপরিচারিকার কাজ করতো তার মেয়ে। সেখান থেকে গত ৩০ সেপ্টেম্বর বিকেলে ওই বাসা থেকে তুলে নিয়ে যায় শামীম ও তার লোকজন। তারপর থেকে আর কোন খোঁজ পাচ্ছিলেন না। ৭ বছর আগে নবীগঞ্জ উপজেলার রাজাবাজ গ্রামের কবির মিয়ার সঙ্গে মেয়ের বিয়ে দিয়েছিলেন তিনি। গত দুই বছর হলো কবির মিয়া তার মেয়েকে তালাক দিয়েছে। এর পর থেকে ছেলেকে নিয়ে বাবার বাড়িতে অবস্থান করছিলেন তিনি। তখন থেকে স্বামী পরিত্যক্তাকে উত্যক্ত করতো পার্শ্ববর্তী গুতগাঁও গ্রামের শামীম আহমদ।

আনোয়ার আলী মঙ্গলবার ভোররাতে শামীমের কাছে তার মেয়ে খোঁজ-খবর জানতে চাইলে শামীম আহমেদর লোকজন তাকে জোর করে শামীমের বাড়িতে ধরে নিয়ে যায় এবং রড দিয়ে পিটিয়ে গুরুতর আহত করে। পরে স্থানীয় লোকজন তাকে উদ্ধার করে প্রাথমিক চিকিৎসা দেন।

এ ব্যাপারে জগন্নাথপুর থানার ওসি (তদন্ত) মুসলেহ উদ্দিন আহমেদ জানান, স্বামী পরিত্যক্তার বাবাকে নির্যাতনের ঘটনায় ৪ জনকে আটক করা হয়েছে। আটককৃতদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। শামীমকে ধরতে পুলিশ অভিযান চালাচ্ছে। মেয়েটিকে নবীগঞ্জ থেকে উদ্ধার করা হয়েছে।