চৌদ্দগ্রামে স্ত্রীকে হত্যার ২ দিন পর স্বামীর আত্মহত্যা

কামাল হোসেন নয়ন, কুমিল্লা চৌদ্দগ্রাম প্রতিনিধি: কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামে স্ত্রীকে হত্যার ২ দিন পর স্বামীর আত্মহত্যার খবর পাওয়া গেছে। চাঞ্চল্যকর এ ঘটনা ঘটেছে উপজেলার আলকরা ইউনিয়নের কুঞ্জশ্রীপুর গ্রামে।

স্ত্রীকে হত্যা করার দু’দিন পরেই বিষপানে আত্মহত্যা করেছে স্বামী হেলাল উদ্দিন (২৭)। বুধবার (২৮ অক্টোবর) দুপুরে এই ঘটনা ঘটে বলে জানা গেছে। হেলাল উদ্দীন ওই গ্রামের মৃত ছিদ্দিকুর রহমানের ছেলে। এর আগে, গত সোমবার (২৬ অক্টোবর) হেলাল উদ্দিনের স্ত্রী মোসা: দিলোয়ারা আক্তার শিউলি’র মরদেহ উদ্ধার করে চৌদ্দগ্রাম থানা পুলিশ।

স্ত্রীকে হত্যার অভিযোগে প্রধান আসামী হেলাল উদ্দিন সহ ৪ জনের নাম উল্লেখ করে এবং ২-৩ জন অজ্ঞাতনামাকে আসামী করে চৌদ্দগ্রাম থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা দায়ের করেন নিহত শিউলির পিতা ফয়েজ আহম্মদ। এরপর থেকে হেলাল উদ্দিনসহ পরিবারের লোকজন পালাতক ছিলো।

বুধবার সকালে হেলাল উদ্দিন পরিবারের সদস্যদের চোখের আড়ালে নিজ বাড়িতেই বিষপান করেন। পরে গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়লে পরিবারের লোকজন প্রথমে চৌদ্দগ্রাম উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এবং অবস্থার অবনতি ঘটলে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে উন্নত চিকিৎসার জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যান।

কিন্তুু পথিমধ্যে হেলাল উদ্দিনের মৃত্যু হয়। চৌদ্দগ্রাম উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্তব্যরত ডাক্তার আবুল হাশেম সবুজ জানান, হেলাল উদ্দিনকে মুমূর্ষু অবস্থায় হাসপাতালে আনা হয়। তার মুখে ও শরীরে বিষের অস্তিত্ব পাওয়ায় উন্নত চিকিৎসার জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। এ ব্যাপারে চৌদ্দগ্রাম থানার এসআই মনির হোসেন বলেন,

‘মৃত হেলাল উদ্দিন তার স্ত্রী শিউলীকে হত্যার অভিযোগে দায়েরকৃত মামলার প্রধান আসামী। সে বিষপান করলে পরিবারের সদস্যরা তাকে নিয়ে চৌদ্দগ্রাম স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসে। পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য কুমিল্লায় নেয়ার পথে তার মৃত্যু হয়।