চৌদ্দগ্রামে আওয়ামীলীগ কর্মী রানা হত্যার বিচারের দাবিতে বিক্ষোভ সমাবেশ ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত

কামাল হোসেন নয়ন, চৌদ্দগ্রাম (কুমিল্লা) প্রতিনিধিঃ কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামে আওয়ামীলীগ কর্মী আবু বকর ছিদ্দিক রানা হত্যার বিচার দবিতে বিশাল বিক্ষোভ সমাবেশ ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। উপজেলার বাতিসা ইউনিয়নের পাতড্ডা বাজারে স্থানীয় এলাকাবাসী এ বিক্ষোভ সমাবেশ ও দোয়া মাহফিলের আয়োজন করে।

স্থানীয় বাতিসা ইউপি চেয়ারম্যান জাহিদ হোসেন টিপুর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত বিক্ষোভ সমাবেশে বক্তব্য রাখেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক রহমত উল্লাহ বাবুল, চৌদ্দগ্রাম পৌরসভার মেয়র আওয়ামীলীগ নেতা মিজানুর রহমান,কুমিল্লা জেলা পরিষদের সদস্য ভিপি ফারুক আহমেদ মিয়াজী,উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান এবিএমএ বাহার,মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার আবুল হাশেম,আ.লীগ নেতা আক্তার হোসেন পাটোয়ারী,উপজেলর আলকরা ইউপি চেয়ারম্যান গোলাম ফারুক হেলাল, চৌদ্দগ্রাম উপজেলা যুবলীগ আহবায়ক ও শ্রীপুর ইউপি চেয়ারম্যান শাহজালাল মজুমদার,গুনবতী ইউপি চেয়ারম্যান সৈয়দ আহমেদ খোকন,কালিকাপুর ইউপি চেয়ারম্যান মাহবুব হেসেন মজুমদার,কাশিনগর ইউপি চেয়ারম্যান মোশারেফ হোসেন,মুন্সীরহাট ইউপি চেয়ারম্যান মাহফুজ আলম, চিওড়া ইউপি চেয়ারম্যান একরামুল হক ঘোলপাশা ইউপি চেয়ারম্যান কাজী জাফর আহমেদ,জগন্নাথ দীঘি ইউপি চেয়ারম্যান জানে আলম,উজিরপুর ইউপি চেয়ারম্যান খোরশেদ আলমসহ উপজেলা ,ইউনিয়ন ও স্থানীয় আওয়ামীলীগ যুবলীগ ও ছাত্রলীগ নেতৃবৃন্দ।

২০১৬ সালের ২ সেপ্টেম্বর রাত ৮টায় আমজাদের বাজারের পশ্চিম পাশে একটি ব্রিজের উপর বসে গল্প করা অবস্থায় মাদক সন্ত্রাসী গোলাম মোস্তফা ভুঁইয়া বিপ্লব প্রকাশ লেংড়া বিপ্লবের নেতৃত্বে একদল সন্ত্রাসী রানাকে প্রথমে গুলি করে এবং পরে ধারালো অস্ত্র দিয়ে এলাপাথারি কুপিয়ে হত্যা করে।এ সময় সন্ত্রাসীরা রানার বন্ধু বশিরকেও কুপিয়ে জখম করে।এঘটনায় রানার মা বারেহানা বেগম বাদি হয়ে বিপ্লবের পিতা আবদুল হাই কানুকে হুকুম দাতা উল্লেখ করে ১৮ জনকে আসামি করে চৌদ্দগ্রাম থানায় মামলা দায়ের করেন। মামলায় পুলিশ অস্ত্র উদ্ধারসহ আসামিদের কয়েকজনকে গ্রেফতার করে কোর্টে সোপর্দ করে। সমাবেশে বক্তাগন এ হত্যাকান্ডের আসামী বিপ্লব ও তার পিতা আবদুল হাই কানুর ফাঁসি দাবি করেন।