চুনারুঘাটে সরকারী ২৮ বস্তা চাল পাচারকালে জব্দের ঘটনায় পুলিশের মামলা

এম এস জিলানী আখনজী, চুনারুঘাট (হবিগঞ্জ) প্রতিনিধি: হবিগঞ্জের চুনারুঘাটে সরকারী ২৮ বস্তা চাউল পাচারকালে জব্দের ঘটনায় ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ সভাপতি আলতা মিয়ার ভাতিজা জালাল মোল্লা ওরফে সজল মিয়া (৩৫) কে আসামী করে মামলা দায়ের করেছে পুলিশ।

চুনারুঘাট থানার মামলা নং- ৮ তাং: ১৭-৪-২০২০ইং। আসামী জালালা মোল্লা ওরফে সজল মিয়া উপজেলার মিরাশী ইউনিয়নের রতনপুর গ্রামের মহালদার বাড়ির হাজি সিরাজ মিয়ার পুত্র। মামলার তদন্তকারী অফিসার অলক বড়ুয়া জানান, গোপন সংবাদ পেয়ে বৃহস্পতিবার (১৬ এপ্রিল) পৌরশহরের বাল্লা রোড থেকে ২ টি টমটমে ২৮ বস্তা চাউলসহ দুই চালক কে থানা পুলিশ আটক করে।

আটক টমটম ড্রাইভারদের স্বীকারোক্তি অনুযায়ী জানা যায়, উপজেলার মিরাশী ইউনিয়নের রতনপুর গ্রামের জালাল মোল্লা ওরফে সজল মিয়া তাদের ভাড়া নিয়ে চাউলের বস্তা গুলো চুনারুঘাট বাজারের বাল্লা রোডে নিয়ে আসতে বলেন। স্থানীয় মিরাশী ইউপি চেয়ারম্যান রমিজ উদ্দিন বলেন, সরকারের বরাদ্দকৃত চাউল ইউপি সদস্য ও ট্যাগ অফিসারের উপস্থিতে স্বচ্ছতা অনুযায়ী বিতরণ করি। তারপর যদি কেউ বিক্রি করে এর দায় আমাদের না। ওসি শেখ নাজমুল হক বলেন- সারাদেশে করোনা মহামারিতে যারা গরীবের চাউল বা খাদ্য সামগ্রী আত্মসাৎ করবে, সে যেই হোক তাকে ছাড় দেয়া হবে না।

সুষ্ট তদন্তের মাধ্যমে আটক চাউলের সাথে জড়িতদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে। উপজেলা নির্বাহী অফিসার সত্যজিত রায় দাশ বলেন- মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কঠোর নির্দেশনার পরও যারা সরকারের বরাদ্দকৃত খাদ্য সামগ্রী আত্মসাৎ করার চেষ্টা করবে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে। কোন স্বচ্ছল ব্যাক্তি ত্রান পেয়ে যদি বিক্রি করেন সেটাও আইনানুগ ভাবে ব্যবস্থা নেয়া হবে।